সবুজ-মেরুণ জার্সি গায়ে একসময় দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। তিনি রক্ষণে থাকলে সেই প্রাচীর ভাঙতে যথেষ্ট কষ্ট করতে হতে বিপক্ষের আক্রমণ বিভাগকে। মোহনবাগানের হয়ে বহু যুদ্ধের নায়ক তিনি। সেই মণিতোম্বি সিং আর নেই। মাত্র ৩৯ বছর বয়সেই প্রয়াত হলেল মোহনবাগানের প্রাক্তন অধিনায়ক। মণিপুরের সর্বকালের অন্যতম সেরা ফুটবলার ছিলেন তিনি। বেশ কিছুদিন ধরেই শারীরিক অসুস্থতায় ভুগছিলেন তিনি। তাঁর শারীরিক অবস্থার ক্রমেই অবনতি হচ্ছিল। অবশেষে প্রয়াত হন মণিতোম্বি সিং।

আরও পড়ুনঃজেনে নিন ২০০৮ আইপিএলের অধিনায়করা এখন কি করছেন

ইম্ফলের আচানবেগেইতে জন্মেছিলেন মণিতোম্বি। আর্মি বয়েজের হয়ে কেরিয়ার শুরু করেছিলেন তিনি। এর পর কেরিয়ারের শুরুর দিকে সার্ভিসেসের হয়ে দুই মরশুম খেলেছিলেন। এয়ার ইন্ডিয়া, সালগাঁওকর এফসি ও মোহনবাগানের মতো দলের জার্সি গায়ে খেলেছেন মণিপুরের এই তারকা ফুটবলার। ২০০৩ থেক ২০০৫ সাল পর্যন্ত মোহনবাগানের হয়ে মাঠে নামেন মোণিতোম্বি। রাইট ব্যাকে খেলতেন এই মণিপুরি ফুটবলার। কিছু ম্যাচে তাঁকে মাঝমাঠেও খেলানো হয়েছিল। তাঁর নেতৃত্বেই মোহনবাগান ২০০৪ সালে অল এয়ারলাইন্স গোল্ড কাপে চ্যাম্পিয়ন হয়। ২০০২ সালে জাতীয় দলের জার্সি গায়ে চাপিয়েছেন মোণিতোম্বি। এলজি কাপ জয়ী ভারতীয় অনূর্ধ্ব-২৩ দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। মাঠে নেমেছেন এশিয়ান গেমসেও।

 

 

আরও পড়ুনঃমেসি ম্যাজিকে বাজি মাত বার্সার, কোয়ার্টার ফাইনালে লড়াই বায়ার্নের বিরুদ্ধে

আরও পড়ুনঃপ্রত্যাশামতোই চেলসিকে উড়িয়ে দিল বায়ার্ন মিউনিখ, কোয়ার্টারে সামনে বার্সা

মণিপুরের রাজ্য লিগে ২০১২ সাল থেকে খেলেছেন তিনি। ২০১৪ সালে মোণিতোম্বি নেরোকার হয়ে মণিপুর স্টেট লিগে মাঠে নামেন এবং প্রথমবার চ্যাম্পিয়ন করেন ক্লাবকে। খেলা ছাড়ার পর কোচিং কেরিয়ারও শুরু করেছিলেন মণিতোম্বা। কিন্তু মণিতোম্বার অকাল প্রয়াণে শোকের ছায়া ময়দান জুড়ে। শোক প্রকাশ করা হয়েছে তার প্রাক্তন ক্লাব মোহনবাগানের তরফেও। মণিতোম্বির চলে যাওয়া ফুটবলরে অপূরণীয় ক্ষতি বলে জানিয়েছেন ময়দানের বর্তমান থেকে প্রাক্তন ফুটবলাররা।