কিছুদিন আগের কথা আইএসএল ফ্রাঞ্চাইজি মুম্বাই সিটি এফসির মালিকানা কিনে নেয় ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের অন্যতেম সেরা ক্লাব ম্যাঞ্চেস্টার সিটি’র সিটি ফুটবল গ্রুপ। ভারতীয় ফুটবলের এই চুক্তি একটা ঐতিহাসিক ঘটনা বলেই মনে করছেন সবাই। কিন্তু এবার সেই মুম্বাই সিটি এফসি নির্বাসনের কবলে। তাও আবার ম্যাচ অফিশিয়ালদের পিটিয়ে। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার। মুম্বই এলিট ডিভিশন লিগের ম্যাচে সহকারি রেফারি উমেশ প্যাটেলকে মারধোর করেন মুম্বাই সিটি এফসির অনুর্ধ্ব ১৮ দলের খেলোয়াড় সহ সাপোর্ট স্টাফরা। গোটা ঘটনাটি দেখে নিন্দার ঝড় ওঠে মুম্বই ফুটবল মহলে। তরুণ ফুটবলারদের সঙ্গে এই ঘটনায় যুক্ত ছিলেন, মুম্বাই সিটি এফসি জুনিয়র দলের গোলকিপার কোচ আব্দুল কাদির, ফিজিও জয় সিং, কোচ মোহন দাস, সহকারি কোচ সুপ্রিত জাথানও ছিলেন। 

আরও পড়ুন - খোঁজ পাওয়া গেল ভক্তের, সচিনের সঙ্গে দেখা করনোর উদ্যোগ হোটেল কতৃপক্ষের

মুম্বই ডিস্ট্রিক ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন কুপারেজে বৈঠক করে এই নিয়ে। তারপর নিজেদের সিদ্ধান্তে মুম্বই ডিস্ট্রিক্ট ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন জানিয়েছে, ওই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত থাকার অপরাধে, আব্দুল কাদির ও জয় সিংকে পাঁচ বছরের জন্য নির্বাসনে পাঠানোর পাশাপাশি ২৫ হাজার টাকা জরিয়ামা করা হয়েছে। কোচ মোহন দাস ও সহকারি কোচ সুপ্রিত জাথান এক বছরের জন্য নির্বাসিত ও ২৫ হাজার টাকা জরিমানা। এবম ঘটনায় যুক্ত দষ ফুটবলারকে এক বছরের নির্বাসনও পাঁচ হাজার টাকার জরিমানা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ক্লাব হিসেবে মুম্বই সিটি এফসির জুনিয়র দল এক বছরের জন্য নির্বাসিত। সঙ্গে ১০ লক্ষ টাকা জরিমানা দিতে হবে ক্লাবকে। 

আরও পড়ুন - বুন্দেশলিগার আসরে ভারতীয় বংশোদ্ভূত ফুটবলার, খেললেন বার্য়ান মিউনিখের হয়ে

বুধবার মুম্বই এলিট ডিভিশন লিগে বান্দ্রার, নেভিল ডিসুজা গ্রাউন্ডে বুধবার খেলা ছিল মুম্বাই সিটি এফসি ও কর্নাটক এসের মধ্যে। খেলা শেষ হওয়ার পর থেকেই মুম্বাই বেঞ্চ থেকে দলের সাপোর্ট স্টাফরা সহকারি রেফারি উমেশ প্যাটেলকে কটুক্তি করতে শুরু করেন। তারপর সেটা শুরু হয়ে যায় শারীরীর নিগ্রহ। আর এই ঘটনা থেকেই ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে মুম্বই ডিস্ট্রিক ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন। তাই বড় ক্লাবের বিরুদ্ধে কড়া শাস্তি ঘোষণা করে নিজেদের অবস্থান পরিস্কার করে দিল তারা। 

আরও পড়ুন - দশ বছর বাদে ঘরের মাঠে প্রথম টেস্ট, শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ড্র পাকিস্তানের