দেশ জুড়ে বেড়েই চলেছে করোনা ভাইরাসে সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা। পঞ্চম দফার লকডাউন অথবা আনলক ওয়ান সরকার একাধিক বিষয়ে শিথিলতা করলেও, ক্রীড়া ক্ষেত্রের জন্য এখনও কিছু ঘোষণা করেননি। সূত্রের খবর,আনলক থ্রিতে ক্রীড়া ক্ষেত্রের জন্য একাধিক গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা করা হতে পারে। কিন্তু ভবিষ্যতের কথা ভেবে আইলিগের জন্য প্রক্রিয়া শুরু করে দিল সর্ব ভারতীয় ফুটবল ফেডারেশন। আইলিগে নতুন দল নেওয়ার জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে দিল এআইএফএফ। 

আরও পড়ুনঃভিডিও শেয়ারের মাধ্যমে জর্জ ফ্লয়েড হত্যার প্রতিবাদ আইসিসির

গত মরসুমে করোনা ভাইরাসের কারণে মাঝপথেই শেষ করতে হয়েছে আইলিগ। পয়েন্টের বিচারে মোহনবাগান ধরা ছোঁয়ার বাইরে চলে যাওয়ায় চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয় মোহনবাগানকে। পরের মরসুমে আবার এটিকের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে বাগান। ফলে ২০২০-২১ মরসুমে আইএসএল খেলবে মোহনবাগন। বাংলার অপর বড় দল কোন লিগ কেলতে চলেছে তা নিয়ে অবশ্য এখনও ধোঁয়াশা রয়েছে। পুরো দমে দল গঠন করলেও দলের স্পনসরশিপ ও মালিকানা নিয়েও সমস্যায় রয়েছে লাল-হলুদ শিবির। কিন্তু পরিস্থিতি যাই হোক চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী মোহনবাগান যেখানে আইএসএল খেলবে, সেখানে আইএসএল খেলার জন্য শেষ চেষ্টা টুকুও করবে ইষ্টবেঙ্গল কর্তারা। ফলে আইলিগে দুটি দলের জায়গা ফাঁকা হতে পারে। তাই আই লিগে নতুন কর্পোরেট দল নেওয়ার প্রক্রিয়া চালু করল সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশন। শুক্রবার নতুন কর্পোরেট দলের জন্য বিজ্ঞাপন দিল এআইএফএফ। ১০ জুন থেকে ২০ জুনের মধ্যে চার লক্ষ টাকার বিনিময়ে বিড পেপার তোলা যাবে। রাজধানী দিল্লি, রাঁচি, জয়পুর, যোধপুর, ভোপাল, আমেদাবাদের মতো শহর থেকে আসতে পারে আই লিগের নতুন দল।

 

 

আরও পড়ুনঃভূঁড়ি নিয়ে বেসামাল মারাদোনা,অবশেষে সামনে এল ভিডিওর সত্যতা

আরও পড়ুনঃএ যেন ছোট্ট ধোনি,অবকিল মারছে মাহির ট্রেডমার্ক হেলিকপ্টার শট,দেখুন ভাইরাল ভিডিও

মনে করা হচ্ছে দিল্লি বা উত্তর ভারতের কোনও শহর থেকে খেলতে পারে আই লিগের নতুন দল। ফেডারেশন সূত্রে খবর, দিল্লির দল সুদেভা এফসি কর্পোরেট দল হিসাবে আই লিগে খেলার সম্ভাবনা প্রবল। তিন বছর আগে শেষ কর্পোরেট দল  হিসাবে আই লিগে এসেছিল গোকুলাম কেরালা। নতুন কর্পোরেট দল এলে এবারের আই লিগ হবে ১২ দলের। আইলিগে নতুন দলের বিজ্ঞাপনের বিষয়ে ফেডারেশন সচিব কুশল দাস  বলেছেন,'মোহনবাগান চলে যাওয়ার পর আই লিগে নতুন দল নিতে চাই আমরা। একইসঙ্গে আই লিগকে গোটা ভারতে ছড়িয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে ফেডারেশনের। তাই যে সমস্ত শহরে আই লিগের দল নেই,সেখান থেকেই নতুন দল নিতে চায় ফেডারেশন।'ফলে আইএসএলের ধাঁচেই আইলিগকেও পুরো ঢেলে সাজাতে যে মরিয়া সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশন, তা সচিব কুশল দাসের কথা থেকেই পরিষ্কার।