ক্রিকেট, ফুটবল, টেনিস থেকে বাস্কেটবল। আমেরিকায় পুলিসি হেফাজতে কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েডের হত্যার ঘটনায় সরব সমগ্র ক্রিড়া বিশ্ব।  গত সোমবার রাতে মিনিয়াপলিসের এক শ্বেতাঙ্গ পুলিশ অফিসার কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েডকে তার গলার কাছে হাঁটু গেড়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন। প্রায়  ৯ মিনিট তার গলা হাঁটু দিয়ে চেপে ধরে রাখেন পুলিশ কর্মকর্তা ডেরেক চোবিন। তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে এবং তার বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগও আনা হয়েছে। জর্জকে শ্বাসরোধ করে মৃত্যুর প্রতিবাদ এবং ন্যায়বিচারের দাবিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র জুড়ে ব্যাপক মাত্রায় বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। শুধু আমেরিকা নয়, বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে গোটা বিশ্ব জুড়ে। ক্রীড়া বিশ্বেও আছড়ে পড়েছে প্রতিবাদের ঢেউ। লিওনেল মেসি, স্যাঞ্চো, পল  পোগবা থেকে টাইগার উডস, মাইকেল জর্ডন, ক্রিস গেইল সকলেই প্রতিবাদ জানিয়েছেন এই ঘটনার। ইপিএলের ক্লাব লিভারপুল ও চেলসি ও বুন্দেশিগালর ক্লাব বরুশিয়া ডর্টমুন্ড অভিনব প্রতিবাদ করেন। মাঠের মাঝে হাঁটু গেড়ে বসে ফ্লয়েডের আত্মার শান্তি কামনার পাশাপাশি দোষীর কঠোর শাস্তির দাবি জানান সকলে।

আরও পড়ুনঃভূঁড়ি নিয়ে বেসামাল মারাদোনা,অবশেষে সামনে এল ভিডিওর সত্যতা

আরও পড়ুনঃএ যেন ছোট্ট ধোনি,অবকিল মারছে মাহির ট্রেডমার্ক হেলিকপ্টার শট,দেখুন ভাইরাল ভিডিও

ঘটনায় আইসিসির কাছে প্রতিবাদে নামার আবেদন জানান অপর ক্যারেবিয়ান তারকা বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক ড্যারেন সামি। সেই আর্জিতে সাড়া দিল বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থা। শুক্রবার প্রতিবাদের ভাষা হিসেবে সোশ্যাল মিডিয়াকেই বেছে নেয় আইসিসি। ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা এদিন একটি ভিডিও ট্যুইট করেছে। যেখানে ইংল্যান্ডের গত বিশ্বকাপ জয়ের মুহূর্ত দেখানো হয়েছে। যেখানে চরম উত্তেজনার সুপার ওভারে নিউজিল্যান্ড ব্যাটসম্যানদের বল করছেন বার্বেডোজজাত জোফ্রা আর্চার। সঙ্গে আইসিসি লেখে, ‘বৈচিত্র ছাড়া ক্রিকেট ভাবা যায় না।’ গত বছর ইংল্যান্ডের যে টিমটা বিশ্বজয়ী হয়, তার অধিনায়কই ইংরেজ নন। ইয়ন মর্গ্যান আইরিশ। টিমের এক নম্বর পেসার আর্চারের জন্ম ওয়েস্ট ইন্ডিজে। বিশ্বকাপের সেরা পারফর্মার ইংরেজ অলরাউন্ডার বেন স্টোকস নিউজিল্যান্ডজাত। দুই স্পিনার মইন আলি এবং আদিল রশিদ দু’জনই পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত। ইংল্যান্ডের হয়ে শুরুতেই নেমে যিনি ঝড় তুলে দিতেন, সেই জেসন রয় দক্ষিণ আফ্রিকাজাত। এমনকী বিশ্বকাপ জয়ের পর মর্গ্যান বলেছিলেন, বৈচিত্রের মধ্যে একতাই তাঁর টিমের সাফল্যের মূলমন্ত্র। এবার ইংল্যান্ডের সেই বিশ্বজয়ের মুহূর্তকেই বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের অস্ত্র করল আইসিসি। আইসিসির অভিনব প্রতিবাদ ও ভাবনাকে কুর্ণিশ জানিয়েছে ক্রিকেট বিশ্ব।

 

 

আরও পড়ুনঃস্বাস্থ্যবিধি মেনেই নিজের অ্যাকাডেমিতে অনুশীলন শুরু করলেন লক্ষ্মীরতন শুক্লা