মহামারী করোনা ভাইরাস ক্রমশ নিজের মারণ থাবা বিস্তার করে চলেছে গোটা বিশ্বে। দ্রুত গতিতে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। মারণ ভাইরাস সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে নানাভাবে প্রচার করছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। প্রচারে অংশ নিচ্ছেন ক্রীড়া ব্যক্তিত্বরাও। এবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সঙ্গে সচেতনতা বাড়াতে এগিয়ে এল ফিফা। বিশ্বের বর্তমান ও প্রাক্তন ২৮ জন প্লেয়ারকে নিয়ে সচেতনতার প্রচারে নামল বিশ্ব ফুটবলের নিয়ামক সংস্থা। এই প্রচারে মেসি, পুওল, ফিলিপ লামদের সঙ্গে জায়গা করে নিলেন ভারতীয় ফুটবল দলের অধিনায়ক সুনীল ছেত্রী।

আরও পড়ুনঃকরোনা ভাইরাস মোকাবিলায় ২৫ মিলিয়ন টাকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত ক্রিকেট বোর্ডের

ফিফা ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার যৌথ উদ্যোগে নির্মীত ভিডিওয় ২৮ জন ফুটবলার ১৩টি ভাষায় বিশ্বজুড়ে সবাইকে সচেতনতার বার্তা দেবেন। ‘পাস দ্য মেসেজ টু কিক আউট করোনাভাইরাস’ নামের এই প্রচারে রয়েছেন জিয়ানলুইঘি বুফোঁ, ইকের ক্যাসিয়াস, স্যামুয়েল এটো, ফিলিপ লাম, গ্যারি নিলেকার, লিয়োনেল মেসি, জাভি হার্নান্ডেজ, কার্লেস পুয়োলের মতো বিখ্যাতরা। আর তাতে স্থান করে নিয়েছেন ভারতীয় ফুটবল তারকা সুনীল ছেত্রী। সাধারণ মানুষের সুরক্ষার জন্য পাঁচটি নিয়ম মানার কথা বলা হয়েছে ভিডিওটিতে। এর মধ্যে রয়েছে, হাত ধোয়া, হাঁচি বা কাশির সময়ে সচেতনতা অবলম্বন করা, হাত দিয়ে মুখ স্পর্শ না করা, দূরত্ব বজায় রাখা ও  শরীর খারাপ মনে হলে ঘরের মধ্যে নিজেকে বন্দি করে রাখা। 

 

;

 

আরও পড়ুনঃনিজের মেয়েকে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের প্রয়োজনীয়তা বললেন ওয়ার্নার, ভাইরাল ভিডিও

আরও পড়ুনঃকরোনা যুদ্ধে জয়, সুস্থ আর্সেনাল কোচ মাইকেল আর্তেতা

উল্লেখ্য, করোনার জেরে বিশ্বব্যাপী বাতিল এবং স্থগিত হয়ে গিয়েছে প্রায় সমস্ত স্পোর্টস ইভেন্ট। লা লিগা, ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ, সিরি এ থেকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ- সব ম্যাচ স্থগিত। চলতি বছর বসছে না ইউরো কাপের আসর। স্থগিত হয়ে গিয়েছে টোকিও অলিম্পিকও। ভারতের ছবিটাও একইরকম। স্থগিত হয়ে গিয়েছে সমস্ত ফুটবল এবং ক্রিকেট টুর্নামেন্ট। পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে আইপিএলও। অন্যান্য খেলাতেও পড়েছে করোনার প্রভাব। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ডিরেক্টর জেনারেল টেড্রস অ্যাডহানম জেনেভায় এই ভিডিয়ো প্রচার অনুষ্ঠানে বলেন, ‘‘করোনাভাইরাস রোধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করার কথা বলে যাচ্ছেন ফিফার সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনো। প্রচার বা আর্থিক সহযোগিতার মাধ্যমে হোক, করোনাভাইরাস আটকানোর জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছে ফিফা। আমরা সবাই এক থাকলে করোনাভাইরাসকে হার মানানো সম্ভব হবেই।’’