সর্বনাশ, এই ৫ ফল খেলেই ভবিষ্যতে হতে পারে মারাত্মক ক্ষতি

First Published 17, Nov 2020, 9:05 PM

ফল আমাদের শরীরের জন্য কতটা উপকারী তা আমরা প্রত্যেকেই জানি। প্রতিদিন খাদ্যাভাসের মধ্যে ফল রাখা  অত্যন্ত জরুরি। কিন্তু সব ফল সব সময়ে খাওয়া শরীরের জন্য মোটেই ঠিক নয়। বিশেষ করে গর্ভাবস্থায় থাকার সময় যেমন মা এবং শিশুর স্বাস্থ্যের জন্য ফল খাওয়া দরকার তেমনি আবার গর্ভাবস্থায় থাকাকালীন সব ফল খাওয়া শরীরের জন্য ঠিক নয়। গর্ভাবস্থায় থাকাকালীন কোন কোন ফল শরীরের জন্য ঠিক নয়, রইল তার তালিকা।
 

<p><strong>আনারস:</strong><br />
গর্ভাবস্থায় থাকাকালীন ভুল করেও আনারস খাবেন না। এতে উচ্চমানের ব্রোমেলিন থাকে যা জরায়ুকে নমনীয় করে তোলে। যার ফলে মিসক্যারেজ হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায়।<br />
&nbsp;</p>

আনারস:
গর্ভাবস্থায় থাকাকালীন ভুল করেও আনারস খাবেন না। এতে উচ্চমানের ব্রোমেলিন থাকে যা জরায়ুকে নমনীয় করে তোলে। যার ফলে মিসক্যারেজ হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায়।
 

<p><br />
<strong>পেঁপে:</strong><br />
মাতৃত্বকালীন অবস্থায় ভুল করে কাঁচা পেঁপে খাবেন না। পেঁপেতে ল্যাটেক্স নামক একটি উপাদান রয়েছে যার ফলে মায়ের শরীরে তা গেলে জরায়ুকে সংকোচন করে। তাই গর্ভাবস্থায় পেঁপে খাওয়া একদমই ঠিক নয়। এর পাশাপাশি পাপাইন এনজাইম যুক্ত সাপলিমেন্টও এড়িয়ে চলুন।<br />
&nbsp;</p>


পেঁপে:
মাতৃত্বকালীন অবস্থায় ভুল করে কাঁচা পেঁপে খাবেন না। পেঁপেতে ল্যাটেক্স নামক একটি উপাদান রয়েছে যার ফলে মায়ের শরীরে তা গেলে জরায়ুকে সংকোচন করে। তাই গর্ভাবস্থায় পেঁপে খাওয়া একদমই ঠিক নয়। এর পাশাপাশি পাপাইন এনজাইম যুক্ত সাপলিমেন্টও এড়িয়ে চলুন।
 

<p><strong>আঙুর:</strong><br />
প্রেগনেন্সি চলাচালীন ডাক্তাররা আঙুর খেতেও বারণ করেন। কারণ আঙুর গাছে পোকামাকড়ের আক্রমণ রোধ করার জন্য প্রচুর পেস্টিসাইড স্প্রে করা হয়।এছাড়া আঙুরে রিসভেরাট্রল থাকে যা সন্তানসম্ভবা মায়ের শরীরে গেলে ক্ষতি হয়।</p>

আঙুর:
প্রেগনেন্সি চলাচালীন ডাক্তাররা আঙুর খেতেও বারণ করেন। কারণ আঙুর গাছে পোকামাকড়ের আক্রমণ রোধ করার জন্য প্রচুর পেস্টিসাইড স্প্রে করা হয়।এছাড়া আঙুরে রিসভেরাট্রল থাকে যা সন্তানসম্ভবা মায়ের শরীরে গেলে ক্ষতি হয়।

<p><strong>গাজর:</strong><br />
প্রেগনেন্সি চলাকালীন বেশি গাজর খেলে মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে। গাজরে থাকা বিটা ক্যারোটিন ত্বকের বিবর্ণতা ও ভ্রুণের ক্ষতি করতে পারে। তাই খাওয়ার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে খান।&nbsp;</p>

গাজর:
প্রেগনেন্সি চলাকালীন বেশি গাজর খেলে মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে। গাজরে থাকা বিটা ক্যারোটিন ত্বকের বিবর্ণতা ও ভ্রুণের ক্ষতি করতে পারে। তাই খাওয়ার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে খান। 

<p><strong>ডাক্তারের পরামর্শ নিন:</strong><br />
মাতৃত্বকালীন অবস্থায় শুধু ফলই নয়, কোন কোন খাবার খাবেন আর কোন কোন খাবার এড়িয়ে চলবেন তাও ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ নিয়ে করুন।</p>

ডাক্তারের পরামর্শ নিন:
মাতৃত্বকালীন অবস্থায় শুধু ফলই নয়, কোন কোন খাবার খাবেন আর কোন কোন খাবার এড়িয়ে চলবেন তাও ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ নিয়ে করুন।