পুজোয় ডায়েট ভুলে লাগাম ছাড়া খাওয়া, বাড়তি মেদ ঝরিয়ে আবারও ছন্দে ফিরতে মেনে চলুন এই টিপস

First Published 3, Nov 2020, 4:26 AM

একে করোনার ভয় ভুলে খানিক বাইরে বেরনোর সাহস, তার ওপর দীর্ঘ দিন গৃহে বন্দি থাকার পর খাওয়ার ধুম, এক কথা. বলতে গেলে পুজোর পর পোটোর অবস্থা নাজেহাল। ভেতর থেকেই হোক বা বাইরের মেদ, শরীরকে চাঙ্গা করতে এবার মেনে চলুন এই নিয়ম। 

<p>প্রত্যহ সকালে এক গ্লাস গরম জলে মধু ও পাতিলেবু মিশিয়ে খান। এই শরবত আপনার বিপাক ক্রিয়া বাড়িয়ে পেটের মেদ ঝড়াতে সাহায্য করবে।</p>

প্রত্যহ সকালে এক গ্লাস গরম জলে মধু ও পাতিলেবু মিশিয়ে খান। এই শরবত আপনার বিপাক ক্রিয়া বাড়িয়ে পেটের মেদ ঝড়াতে সাহায্য করবে।

<p>সাদা চালের ভাতের বদলে ব্রাউন রাইস, ডালিয়া, ওটস জাতীয় শস্য খাওয়ার অভ্যাস করুন।</p>

সাদা চালের ভাতের বদলে ব্রাউন রাইস, ডালিয়া, ওটস জাতীয় শস্য খাওয়ার অভ্যাস করুন।

<p>চিনি খাওয়া বন্ধ করতে হবে। সর্বোপরি মিষ্টি, চকোলেট, আইসক্রিম&nbsp; এসব খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে।</p>

চিনি খাওয়া বন্ধ করতে হবে। সর্বোপরি মিষ্টি, চকোলেট, আইসক্রিম  এসব খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে।

<p>উচ্চ তেলযুক্ত খাওয়ার এবং কোল্ড ড্রিঙ্কস আমাদের পেট এবং উরুতে চর্বি জমিয়ে রাখে। তাই এই জাতীয় খাওয়ার খাদ্য তালিকায় না থাকাই শ্রেয়।</p>

উচ্চ তেলযুক্ত খাওয়ার এবং কোল্ড ড্রিঙ্কস আমাদের পেট এবং উরুতে চর্বি জমিয়ে রাখে। তাই এই জাতীয় খাওয়ার খাদ্য তালিকায় না থাকাই শ্রেয়।

<p>শরীরের বিপাকের হার বৃদ্ধি এবং রক্তের বিষাক্ত উপাদানগুলিকে দূর করতে সাহায্য করে জল। তাই নিয়মিত, নির্দিষ্ট সময় অন্তর সঠিক পরিমাণ জল পান করলে দেহের অতিরিক্ত মেদের হাত থেকে মুক্তিলাভ সম্ভব।</p>

শরীরের বিপাকের হার বৃদ্ধি এবং রক্তের বিষাক্ত উপাদানগুলিকে দূর করতে সাহায্য করে জল। তাই নিয়মিত, নির্দিষ্ট সময় অন্তর সঠিক পরিমাণ জল পান করলে দেহের অতিরিক্ত মেদের হাত থেকে মুক্তিলাভ সম্ভব।

<p>দারচিনি, আদা, গোলমরিচ যুক্ত ঝাল খাওয়ার খান। এই জাতীয় মশলা আপনার দেহে ইনসুলিনের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে।</p>

দারচিনি, আদা, গোলমরিচ যুক্ত ঝাল খাওয়ার খান। এই জাতীয় মশলা আপনার দেহে ইনসুলিনের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে।

<p>প্রতিদিন সকালে দুই কোয়া রসুন খালিপেটে চুষে খান। এর পর লেবু ও মধুর শরবত পান করুন। এর ফলে দেহে রক্ত প্রবাহ সচল থাকে।</p>

প্রতিদিন সকালে দুই কোয়া রসুন খালিপেটে চুষে খান। এর পর লেবু ও মধুর শরবত পান করুন। এর ফলে দেহে রক্ত প্রবাহ সচল থাকে।

<p>সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল নিয়মিতি হাঁটার অভ্যাস করা এবং প্রাণায়াম ও সুর্য নমস্কারের মত কিছু ব্যায়াম করার সু অভ্যাস তৈরি করা।</p>

সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল নিয়মিতি হাঁটার অভ্যাস করা এবং প্রাণায়াম ও সুর্য নমস্কারের মত কিছু ব্যায়াম করার সু অভ্যাস তৈরি করা।