পাহাড় কোলে বড়দিন, সেজে উঠল দার্জিলিং-এর গ্লেনারিজ

First Published 24, Dec 2019, 5:36 PM

শীতের মরশুমে ২০১৯-এর প্রথমেই দশ বছর পর বরফ দেখেছিল দার্জিলিং। সেই আশাতেই এবার আরও বেশি পর্যটকেরা ভিড় জমালেন পাহাড়কোলে। সেজে উঠেছে দার্জিলিং ম্যাল। আলোর রসনাই থেকে শুরু করে গ্লেনারিজের অনবদ্য কেকের স্বাদ, বড়দিনের আমেজে গা ভাসাল দার্জিলিং।

দার্জিলিং-এ বড়দিনের মরশুমে পর্যটকদের ঢল। সকলের জন্যই ঢালাও কেকের সম্ভার নিয়ে এবারও হাজির গ্লিনারিজ। হরেক রকমের কেক পর্যটকদের সামনে তুলে ধরতে উদ্যোগী এই শপ।

দার্জিলিং-এ বড়দিনের মরশুমে পর্যটকদের ঢল। সকলের জন্যই ঢালাও কেকের সম্ভার নিয়ে এবারও হাজির গ্লিনারিজ। হরেক রকমের কেক পর্যটকদের সামনে তুলে ধরতে উদ্যোগী এই শপ।

রাজ্যের অন্যতম ঐতিহ্যবাহি কফি শপের মধ্যে এটি অন্যতম। পর্যটকেরা দার্জিলিং ম্যালে এসে গ্লিনারিজে চা পান করবেন না, কিংবা কেক কিনবেন না এমনটা হয় না, সেই দিকে লক্ষ্য রেখেই তড়িঘড়ি প্রস্তুতি এবার গ্লিনারিজে।

রাজ্যের অন্যতম ঐতিহ্যবাহি কফি শপের মধ্যে এটি অন্যতম। পর্যটকেরা দার্জিলিং ম্যালে এসে গ্লিনারিজে চা পান করবেন না, কিংবা কেক কিনবেন না এমনটা হয় না, সেই দিকে লক্ষ্য রেখেই তড়িঘড়ি প্রস্তুতি এবার গ্লিনারিজে।

প্রাক-বড়দিন উৎসবেই গ্লিনারিজ হাজির হল হরেক রকমের কেক নিয়ে। সকাল সন্ধে দোকানে উপচে পড়া ভিড়। কেকের চাহিদা তুঙ্গে, ক্রেতার তালিকায় সামিল স্থানীয় থেকে পর্যটকেরা।

প্রাক-বড়দিন উৎসবেই গ্লিনারিজ হাজির হল হরেক রকমের কেক নিয়ে। সকাল সন্ধে দোকানে উপচে পড়া ভিড়। কেকের চাহিদা তুঙ্গে, ক্রেতার তালিকায় সামিল স্থানীয় থেকে পর্যটকেরা।

বড়দিন উপলক্ষ্যে গ্লিনারিজ সেজে উঠল নয়া লুকে। ভেতরে পেল্লাই এক কেকের রেপ্লিকা। দোকান জুড়ে থরে থরে সাজিয়ে রাখা কেক, পেস্ট্রি, অ্যাপেল পাই, ব্রাউনি প্রভৃতি, যা থেকে মুখ ফিরেয়ে থাকা এক প্রকার অসাধ্য বিষয়।

বড়দিন উপলক্ষ্যে গ্লিনারিজ সেজে উঠল নয়া লুকে। ভেতরে পেল্লাই এক কেকের রেপ্লিকা। দোকান জুড়ে থরে থরে সাজিয়ে রাখা কেক, পেস্ট্রি, অ্যাপেল পাই, ব্রাউনি প্রভৃতি, যা থেকে মুখ ফিরেয়ে থাকা এক প্রকার অসাধ্য বিষয়।

১৯১১ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল এই কফিশপ। এখানে চিরাচরিত কায়দায় লাল সাদা চেকের টেবিল ক্লথে বসে খাওয়ার আনন্দই ভিন্ন। সঙ্গে মিলবে দার্জিলিং চা, কফি। তাই বড়দিনে সব থেকে বেশি মানুষের ঢল গ্লিনারিজে।

১৯১১ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল এই কফিশপ। এখানে চিরাচরিত কায়দায় লাল সাদা চেকের টেবিল ক্লথে বসে খাওয়ার আনন্দই ভিন্ন। সঙ্গে মিলবে দার্জিলিং চা, কফি। তাই বড়দিনে সব থেকে বেশি মানুষের ঢল গ্লিনারিজে।

দার্জিলিং-এর কোলে এক চিলতে বড়দিনের সুখ। পার্কস্ট্রিটের বিকল্প না হলেও, ম্যালে থাকা এই ক্যাফে অনায়াসে পুরণ করতে পারে কেক পেস্ট্রির স্বাদ, সঙ্গে বড়দিনের ফ্লেভার। হরেক রকমের কেকের মধ্যে সবথেকে বেশি যে কেকের চাহিদা তা হল পাম কেক।

দার্জিলিং-এর কোলে এক চিলতে বড়দিনের সুখ। পার্কস্ট্রিটের বিকল্প না হলেও, ম্যালে থাকা এই ক্যাফে অনায়াসে পুরণ করতে পারে কেক পেস্ট্রির স্বাদ, সঙ্গে বড়দিনের ফ্লেভার। হরেক রকমের কেকের মধ্যে সবথেকে বেশি যে কেকের চাহিদা তা হল পাম কেক।

হরেক রকমের কেকের মধ্যে সবথেকে বেশি যে কেকের চাহিদা তা হল পাম কেক। এই কেকের দাম ২০০ টাকা থেকে ৮৫০ টাকার মধ্যে।

হরেক রকমের কেকের মধ্যে সবথেকে বেশি যে কেকের চাহিদা তা হল পাম কেক। এই কেকের দাম ২০০ টাকা থেকে ৮৫০ টাকার মধ্যে।

loader