প্রতি ঘন্টায় বদলাবে ই-পাসের রঙ, নয়া নিয়ম চালু কলকাতা মেট্রোয়

First Published 9, Sep 2020, 10:09 AM

করোনা আবহে কলকাতা মেট্রোয় জারি করা হয়েছে একাধিক নতুন নিয়ম। স্টেশনে প্রবেশ করার জন্যে প্রথমে দেখাতে হবে ই-পাস। সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা অবধি প্রতি ঘন্টায় ই-পাসের আলাদা আলাদা রঙ হবে। পাশপাশি মেট্রো স্টেশন গুলিতে পান, গুটখার চিহ্ন ধুয়ে মুছে সাফ।  স্টেশনে নামার, ওঠার সিঁড়ি পরিস্কার করা হয়েছে। ঝকঝকে করছে প্ল্যাটফর্ম ও মেট্রোর ভিতরেও। করোনা আবহে যদি কেউ এর পরেও স্টেশন চত্বরে  পিক বা থুতু ফেলে নোংরা করেন তাহলে তাকে ৫০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে। যাত্রীদের এই বিষয়ে সচেতন করতে মেট্রো স্টেশনের দেওয়ালে পোস্টার ঝোলানো হয়েছে।

<p>করোনা আবহে কলকাতা মেট্রোয় জারি করা হয়েছে একাধিক নতুন নিয়ম। &nbsp;থুতু ফেললেই জরিমানা ৫০০ টাকা। যাত্রীদের এই বিষয়ে সচেতন মেট্রো স্টেশনে ইতিমধ্যেই দেওয়া হয়েছে পোস্টার।&nbsp;</p>

করোনা আবহে কলকাতা মেট্রোয় জারি করা হয়েছে একাধিক নতুন নিয়ম।  থুতু ফেললেই জরিমানা ৫০০ টাকা। যাত্রীদের এই বিষয়ে সচেতন মেট্রো স্টেশনে ইতিমধ্যেই দেওয়া হয়েছে পোস্টার। 

<p>পান, গুটখার চিহ্ন ধুয়ে মুছে সাফ। &nbsp;স্টেশনে নামার, ওঠার সিঁড়ি পরিস্কার করা হয়েছে। ঝকঝকে করছে প্ল্যাটফর্ম ও মেট্রোর ভিতরেও। করোনা আবহে যদি কেউ এর পরেও স্টেশন চত্বরে &nbsp;পিক বা থুতু ফেলে নোংরা করেন তাহলে তাকে ৫০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে। যাত্রীদের এই বিষয়ে সচেতন করতে মেট্রো স্টেশনের দেওয়ালে পোস্টার ঝোলানো হয়েছে।</p>

<p><br />
&nbsp;</p>

পান, গুটখার চিহ্ন ধুয়ে মুছে সাফ।  স্টেশনে নামার, ওঠার সিঁড়ি পরিস্কার করা হয়েছে। ঝকঝকে করছে প্ল্যাটফর্ম ও মেট্রোর ভিতরেও। করোনা আবহে যদি কেউ এর পরেও স্টেশন চত্বরে  পিক বা থুতু ফেলে নোংরা করেন তাহলে তাকে ৫০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে। যাত্রীদের এই বিষয়ে সচেতন করতে মেট্রো স্টেশনের দেওয়ালে পোস্টার ঝোলানো হয়েছে।


 

<p><br />
&nbsp;মেট্রো স্টেশনে&nbsp; প্রবেশ করতে একটি গেট ব্যবহার করতে দেওয়া হবে এবং&nbsp;যাত্রীদের বেরিয়ে আসার জন্যে একটি গেট থাকবে। স্টেশনে প্রবেশ করার জন্যে প্রথমে দেখাতে হবে ই-পাস। সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা অবধি প্রতি ঘন্টায় ই-পাসের আলাদা রঙ হবে।&nbsp;</p>


 মেট্রো স্টেশনে  প্রবেশ করতে একটি গেট ব্যবহার করতে দেওয়া হবে এবং যাত্রীদের বেরিয়ে আসার জন্যে একটি গেট থাকবে। স্টেশনে প্রবেশ করার জন্যে প্রথমে দেখাতে হবে ই-পাস। সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা অবধি প্রতি ঘন্টায় ই-পাসের আলাদা রঙ হবে। 

<p>১২ ঘন্টার সেই রঙের তালিকা দেওয়া হবে আরপিএফের কাছে। তালিকা থাকবে মেট্রো রেল পুলিশের কাছে। তারা প্রতি ঘন্টার কালার কোড দেখে বুঝে যাবেন। এবং ই-পাস হাতে থাকা ব্যক্তিকে স্টেশনে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে।</p>

<p>&nbsp;</p>

১২ ঘন্টার সেই রঙের তালিকা দেওয়া হবে আরপিএফের কাছে। তালিকা থাকবে মেট্রো রেল পুলিশের কাছে। তারা প্রতি ঘন্টার কালার কোড দেখে বুঝে যাবেন। এবং ই-পাস হাতে থাকা ব্যক্তিকে স্টেশনে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে।

 

<p><br />
ই-পাস দেখিয়ে এন্ট্রি গেট দিয়ে ভেতরে প্রবেশ করার পর স্টেশনে প্রবেশের সময় থাকবে হ্যান্ড স্যানিটাইজার টাব। মেটাল ডিটেক্টর ডোর পেরোনোর পরেই হাত পরিষ্কার করতে হবে।&nbsp; &nbsp;</p>


ই-পাস দেখিয়ে এন্ট্রি গেট দিয়ে ভেতরে প্রবেশ করার পর স্টেশনে প্রবেশের সময় থাকবে হ্যান্ড স্যানিটাইজার টাব। মেটাল ডিটেক্টর ডোর পেরোনোর পরেই হাত পরিষ্কার করতে হবে।   

<p><br />
হ্যান্ড স্যানিটাইজার হবার পরে তিনি চলে যাবেন ফ্ল্যাপ গেট অবধি। সেখানে গিয়ে তিনি স্মার্ট কার্ড ছোঁয়াবেন। এরপরে মিলবে ভেতরে প্রবেশের অনুমতি। যদিও বিভিন্ন স্টেশনে টিকিট কাউন্টারের সামনেই থাকছে নির্দিষ্ট দুরত্ব বজায় রেখেই লাইন। হলুদ স্টিকারের লাইন।<br />
&nbsp;</p>


হ্যান্ড স্যানিটাইজার হবার পরে তিনি চলে যাবেন ফ্ল্যাপ গেট অবধি। সেখানে গিয়ে তিনি স্মার্ট কার্ড ছোঁয়াবেন। এরপরে মিলবে ভেতরে প্রবেশের অনুমতি। যদিও বিভিন্ন স্টেশনে টিকিট কাউন্টারের সামনেই থাকছে নির্দিষ্ট দুরত্ব বজায় রেখেই লাইন। হলুদ স্টিকারের লাইন।
 

<p>&nbsp; প্ল্যাটফর্মের মধ্যেও থাকছে একই রকম ব্যবস্থা। প্ল্যাটফর্মের আসনে দুরত্ব মেনে বসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। ৪ টি আসনের মধ্যে মাঝের ২ টি আসন বসা যাবে না। ক্রস চিহ্ন ইতিমধ্যেই দিয়ে দেওয়া হয়েছে। বসা যাবে দু'প্রান্তের আসনে। এছাড়া রেকের মধ্যেও থাকছে একই রকম বসার ব্যবস্থা। মোট আসনের এক তৃতীয়াংশ বসার ব্যবস্থা থাকছে। আসনেও ক্রস চিহ্ন দেওয়া হয়েছে।&nbsp;</p>

  প্ল্যাটফর্মের মধ্যেও থাকছে একই রকম ব্যবস্থা। প্ল্যাটফর্মের আসনে দুরত্ব মেনে বসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। ৪ টি আসনের মধ্যে মাঝের ২ টি আসন বসা যাবে না। ক্রস চিহ্ন ইতিমধ্যেই দিয়ে দেওয়া হয়েছে। বসা যাবে দু'প্রান্তের আসনে। এছাড়া রেকের মধ্যেও থাকছে একই রকম বসার ব্যবস্থা। মোট আসনের এক তৃতীয়াংশ বসার ব্যবস্থা থাকছে। আসনেও ক্রস চিহ্ন দেওয়া হয়েছে। 

<p>সূত্রের খবর বৃহস্পতিবার ই-পাস কী ভাবে ব্যবহার করা যাবে সেটা জানিয়ে দেবে মেট্রো কর্তৃপক্ষ। রবিবার নিট পরীক্ষার দিনে ডেমো রান হবে। সব কিছু ঠিক থাকলে সোমবার&nbsp; থেকেই চাকা গড়াতে চলেছে কলকাতা&nbsp;মেট্রোর।</p>

<p><br />
&nbsp;</p>

সূত্রের খবর বৃহস্পতিবার ই-পাস কী ভাবে ব্যবহার করা যাবে সেটা জানিয়ে দেবে মেট্রো কর্তৃপক্ষ। রবিবার নিট পরীক্ষার দিনে ডেমো রান হবে। সব কিছু ঠিক থাকলে সোমবার  থেকেই চাকা গড়াতে চলেছে কলকাতা মেট্রোর।


 

loader