১৫ বছর পর আধুনিকতায় মুড়ে কলকাতায় ফিরল দোতলা বাস, এবার পুজোয় চড়বেন নাকি

First Published 14, Oct 2020, 1:04 AM

ট্রামের মতোই কলকাতার অন্যতম ঐতিহ্য ছিল ডাবল ডেকার বাস বা দোতলা বাস। স্বাধীনতার আগে থেকে কলকাতার রাজপথে চলা শুরু হয়েছিল দোতলা বাস। কিন্তু, ২০০৫ সালে এই গর্ব হারিয়েছিল কলকাতা। ১৫ বছর পরে, ফের এই আইকনিক ডাবল ডেকার বাস ফিরে আসছে কলকাতার রাস্তায়।

 

<p>কলকাতায় ডাবল ডেকার বাস চলা শুরু হয়েছিল ১৯২০ সালে। তারপর থেকে কলকাতার অন্যতম পরিচয় হয়ে উঠেছিল এই দ্বিতল বাসগুলি।</p>

<p>&nbsp;</p>

কলকাতায় ডাবল ডেকার বাস চলা শুরু হয়েছিল ১৯২০ সালে। তারপর থেকে কলকাতার অন্যতম পরিচয় হয়ে উঠেছিল এই দ্বিতল বাসগুলি।

 

<p>মঙ্গলবার দুপুরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্য সচিবালয় নবান্ন থেকে ফের দুটি ডাবল ডেকার বাস-এর চলার শুভসূচনা করেন। তবে এই বাসগুলি কলকাতার ঐতিহ্যশালী লাল রঙের দোতলা বাসগুলির থেকে অনেকটাই আলাদা। লেগেছে আধুনিকতার ছোঁয়া।</p>

<p>&nbsp;</p>

মঙ্গলবার দুপুরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্য সচিবালয় নবান্ন থেকে ফের দুটি ডাবল ডেকার বাস-এর চলার শুভসূচনা করেন। তবে এই বাসগুলি কলকাতার ঐতিহ্যশালী লাল রঙের দোতলা বাসগুলির থেকে অনেকটাই আলাদা। লেগেছে আধুনিকতার ছোঁয়া।

 

<p>তবে, এই বাসগুলি নিত্যযাত্রীদের জন্য নয়। আপাতত বাস দুটি 'দুর্গা পূজা পরিক্রমা'র জন্য ব্যবহার করা হবে। পরে কলকাতা শহরে পর্যটনের জন্য এই বাসগুলি চালানো হবে। ভ্রমণের সূচিতে থাকবে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল, ফোর্ট উইলিয়াম, সেন্ট জন্স চার্চ, জিপিও, ওল্ড কারেন্সি বিল্ডিং, সেন্ট অ্যান্ড্রুস চার্চ, ডালহৌসি (বিবিডি বাগ), গ্রেট ইস্টার্ন হোটেল, কার্জন পার্ক, টাউন হল, ইডেন গার্ডেন্স, লাল দিঘি, প্রিন্সেপ ঘাট, বাবুঘাট।</p>

তবে, এই বাসগুলি নিত্যযাত্রীদের জন্য নয়। আপাতত বাস দুটি 'দুর্গা পূজা পরিক্রমা'র জন্য ব্যবহার করা হবে। পরে কলকাতা শহরে পর্যটনের জন্য এই বাসগুলি চালানো হবে। ভ্রমণের সূচিতে থাকবে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল, ফোর্ট উইলিয়াম, সেন্ট জন্স চার্চ, জিপিও, ওল্ড কারেন্সি বিল্ডিং, সেন্ট অ্যান্ড্রুস চার্চ, ডালহৌসি (বিবিডি বাগ), গ্রেট ইস্টার্ন হোটেল, কার্জন পার্ক, টাউন হল, ইডেন গার্ডেন্স, লাল দিঘি, প্রিন্সেপ ঘাট, বাবুঘাট।

<p>নীল ও সাদা রঙের এই নতুন ডাবল ডেকারবাসগুলিতে প্রবেশ ও প্রস্থানের জন্য একটিই দরজা থাকছে। বাসের মোট ৫১ টি আসনের মধ্যে ১৬টি থাকবে উপরের ডেকে। আর লন্ডনের ডাবল-ডেকার বাসগুলির মতো এই বাসগুলিও হবে 'ওপেন টপ' অর্থাৎ ছাদবিহীন। থাকবে গন্তব্যের নাম লেখা ইলেকট্রনিক বোর্ড, সিসিটিভি ক্যামেরা এবং প্যানিক বাটন।</p>

<p>&nbsp;</p>

নীল ও সাদা রঙের এই নতুন ডাবল ডেকারবাসগুলিতে প্রবেশ ও প্রস্থানের জন্য একটিই দরজা থাকছে। বাসের মোট ৫১ টি আসনের মধ্যে ১৬টি থাকবে উপরের ডেকে। আর লন্ডনের ডাবল-ডেকার বাসগুলির মতো এই বাসগুলিও হবে 'ওপেন টপ' অর্থাৎ ছাদবিহীন। থাকবে গন্তব্যের নাম লেখা ইলেকট্রনিক বোর্ড, সিসিটিভি ক্যামেরা এবং প্যানিক বাটন।

 

<p>কলকাতার পুরোনো ডাবল ডেকার বাসগুলিতে যেমন অত্যন্ত দূষণের সমস্যা ছিল, জ্বালানীও লাগত বেশি। সেই কারণেই ১৯৯০ এর দশকের গোড়ার দিক থেকে বামফ্রন্ট সরকার দোতলা বাসগুলি পর্যায়ক্রমে কলকাতায় থেকে তুলে নিয়েছিল। শেষ বাসটি চলেছিল ২০০৫ সালে। তবে ২০১১ সালে, ক্ষমতায় আসার পরই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পরিবহন বিভাগকে এই বাসগুলিকে কলকাতার রাস্তায় ফিরিয়ে আনার নির্দেশ দিয়েছিলেন বলে জানা গিয়েছে।</p>

কলকাতার পুরোনো ডাবল ডেকার বাসগুলিতে যেমন অত্যন্ত দূষণের সমস্যা ছিল, জ্বালানীও লাগত বেশি। সেই কারণেই ১৯৯০ এর দশকের গোড়ার দিক থেকে বামফ্রন্ট সরকার দোতলা বাসগুলি পর্যায়ক্রমে কলকাতায় থেকে তুলে নিয়েছিল। শেষ বাসটি চলেছিল ২০০৫ সালে। তবে ২০১১ সালে, ক্ষমতায় আসার পরই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পরিবহন বিভাগকে এই বাসগুলিকে কলকাতার রাস্তায় ফিরিয়ে আনার নির্দেশ দিয়েছিলেন বলে জানা গিয়েছে।

<p>মঙ্গলবার বাসগুলির যাত্রা শুরু করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, 'এ জাতীয় বাসগুলি সাধারণত লন্ডনে দেখা যায়'। তিনি আরও জানান, লোকশিল্পীরা এই বাসগুলিতে বাংলার সংস্কৃতিকে তুলে ধরবেন।</p>

<p>&nbsp;</p>

মঙ্গলবার বাসগুলির যাত্রা শুরু করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, 'এ জাতীয় বাসগুলি সাধারণত লন্ডনে দেখা যায়'। তিনি আরও জানান, লোকশিল্পীরা এই বাসগুলিতে বাংলার সংস্কৃতিকে তুলে ধরবেন।

 

<p>জামশেদপুরের বেইবকো সংস্থা থেকে&nbsp; এই দুটি বাস কিনেছিল পশ্চিমবঙ্গ পরিবহন কর্পোরেশন। তবে রাজ্য সরকারের সিদ্ধান্ত অনুসারে পশ্চিমবঙ্গ পর্যটন নিগম এই বাসদুটি চালাবে।</p>

<p>&nbsp;</p>

জামশেদপুরের বেইবকো সংস্থা থেকে  এই দুটি বাস কিনেছিল পশ্চিমবঙ্গ পরিবহন কর্পোরেশন। তবে রাজ্য সরকারের সিদ্ধান্ত অনুসারে পশ্চিমবঙ্গ পর্যটন নিগম এই বাসদুটি চালাবে।

 

<p>২৩ অক্টোবর থেকে পশ্চিমবঙ্গ পর্যটন নিগম-এর ওয়েবসাইট থেকে এই বাসগুলির অনলাইনে বুকিং করা যাবে।</p>

<p>&nbsp;</p>

২৩ অক্টোবর থেকে পশ্চিমবঙ্গ পর্যটন নিগম-এর ওয়েবসাইট থেকে এই বাসগুলির অনলাইনে বুকিং করা যাবে।

 

loader