দীর্ঘ সময় ধরে হেডফোন ব্যবহারের ফলে হতে পারে মারাত্মক সমস্যা। হাই ভলিউমে কখনই হেডফোন ব্যবহার করবেন না। ৯০ ডেসিবেল বা তার চেয়ে বেশি মাত্রার আওয়াজ সরাসরি কানে লেগে হতে পারে কানের সমস্যা। এমনকি আপনি হারিয়ে ফেলতে পারেন শ্রবণ শক্তিও। সারাদিন অফিসের খাটুনির পর একটু রিফ্রেস হওয়ার জন্য বাড়ি ফেরার আগে অবধি আমরা প্রায় বেশিরভাগই হেডফোন ব্যবহার করি গান শোনা বা ভিডিও দেখার জন্য। বর্তমান দিনে হেডফোন ছাড়া বাইরে বেড়োন দায়। এমন অভ্যাস যদি আপনার থেকে থাকে তবে আপনি নিজেই নিজের কত বড় ক্ষতি করছেন জেনে নিন। 

আরও পড়ুন- সার্সকে পিছনে ফেলে এগিয়ে ভয়ঙ্কর করোনা ভাইরাস, মৃত্যু সংখ্যা ৮০০-র বেশি

এক গবেষণায় দেখা গিয়েছে অনেক সময় ধরে হাই ভলিউমে গান শুনলে, অনেকক্ষন কানে কিছু শোনা যায় না। ১০০ ডেসিবেলে টানা ১৫ মিনিট গান শুনলে চিরতরে বধির হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। হেডফোন থেকে যে ইলেক্ট্রম্যাগনেটিক তরঙ্গ সৃষ্টি হয় সেটি মস্তিষ্কের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। এই কারণে ব্লুটুথ হেডফোন ব্যবহারকারীদের ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি। তাই হেড ফোন কেনার আগে সতর্ক হন। 

আরও পড়ুন- দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় হারিয়ে যাওয়া বোন, ৭৮ বছর পর আবার দেখা

সুস্থ থাকতে বুঝে হেডফোন ব্যবহার করুন। বেশি সময় ধরে হেডফোন ব্যবহার করলে লক্ষ্য করবেন কানে খুব ব্যাথা করে। দীর্ঘ সময় ধরে হেডফোন ব্যবহার করলে যেহেতু কানে বাতাস প্রবেশ করতে পারে না সেই কারনেই সাউন্ড কোয়ালিটি খুব হাই বলে মনে হয়। এই ধরণের হেডফোন সবচেয়ে বেশি ক্ষতিকর। কান হল আমাদের শরীরের এমন এক অঙ্গ যা আমাদের পুরো শরীরের ভারসাম্য বজায় রাখে। আর এই অঙ্গটির আমাদের অবহেলা সবচেয়ে বেশি। তাই কানের সমস্যা অতিরিক্ত পরিমানে বৃদ্ধি পেলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। কানে ব্যথা বা কানের যে কোনও সমস্যার জন্য নিজে থেকে ওষুধ খাবেন না। এর ফলে চিরকালের মত শ্রবণশক্তি হারাতে পারেন।