করোনা আবহে কেউ রোজগার হারিয়েছে, কেউবা হারিয়েছে প্রিয় জনকে। এছাড়া এই কঠিন পরিস্থিতিতে  শারীরিক-মানসিক চাপ  দুইই কয়েকগুন বেড়ে গিয়েছে। তবে 
মহিলা-পুরুষ নির্বিশেষে শারীরিক-মানসিক চাপের কারণে বন্ধ্যাত্ব অত্যন্ত সাধারণ একটি সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। উভয়ের সন্তানহীনতার সমস্যার পিছনেই একটা বড় ভূমিকা রয়েছে  এই শারীরিক-মানসিক চাপ এবং অনিয়মিত খাদ্যাভ্যাস। 

আরও পড়ুন, শরীর ও মন চাঙ্গা রাখতে পাতে রাখুন এই ৫ জিনিস, ম্যাজিকের মতোন কাজ করবে যৌনমিলনেও


ইদানীং পুরুষের মধ্যে এই বন্ধ্যাত্ব উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। সাম্প্রতিক একটি পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বর্তমানে ৩০-৫০ শতাংশ বন্ধ্যাত্বের জন্য পুরুষেরাই দায়ি। এর সঙ্গেই আশঙ্কা আসে মনে, তাহলে কি এর কোনও সমাধান নেই। আছে, চলুন আজকে তাহলে জেনে নেওয়া যাক পুরুষের সুস্থ-সবল প্রজনন ক্ষমতা ধরে রাখার কয়েকটি অব্যর্থ ফান্ডা।


 পুরুষের বন্ধ্যাত্ব প্রতিরোধে আমন্ড বাদাম খুবই গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। প্রতিদিন সকালে অন্তত ৫ টি করে আমন্ড বাদাম খেলে উপকার পাবেন। সুস্থ সন্তানের জন্মের জন্য নীরোগ শরীর এবং স্বাভাবিক ওজন অত্যন্ত আবশ্যক। অতিরিক্ত বেশি বা স্বাভাবিক কম ওজন সন্তান ধারণের পক্ষে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে। তাই উচ্চতা ও বয়স অনুযায়ী ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে সঠিক ডায়েট মেনে পাতে রাখুন পুষ্টিকর খাবার।

আরও পড়ুন, অস্ত্রোপচার সফল নীলাঞ্জনার, সাহসিনীকে কুর্ণিশ এশিয়ানেট নিউজ বাংলার


 অতিরিক্ত তেলেভাজা, কৃত্রিম রং ও গন্ধ যুক্ত খাবার পারলে এড়িয়ে চলুন।  ভিটামিন-ই মহিলা ও পুরুষ, উভয়েরই বন্ধ্যাত্ব প্রতিরোধে সাহায্য করে। দই বা ইস্ট জাতীয় খাবারে রয়েছে ভিটামিন-ই। চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে ভিটামিন-ই ওষুধ হিসেবে খেতেই পারেন। যে কোনও মৌসুমি ফল বা সবজিতে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। পেয়ারা, আম, আপেল, তরমুজ, আঙুর ইত্যাদি ফল এবং পাশপাশি বাঁধাকপি, ঢ্যাঁড়স, কুমড়ো ইত্যাদি সবজিতে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে।  আশা করা যায় এগুলি মেনে চললে আপনার স্বপ্ন সার্থক হবে।

আরও পড়ুন, কম খরচে তৈরি হবে পুষ্টিকর খাদ্য, প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতেও সাহায্য করবে মাশরুম-এর এই পদ

 

করোনা সতর্কতায় মাস্কের ব্য়বহার জানতে দেখুন ভিডিও....

"