Asianet News BanglaAsianet News Bangla

Health Tips: অধিক কাজের চাপ থেকে দেখা দিতে পারে মানসিক সমস্যা, জেনে নিন রোগমুক্ত থাকতে কী করবেন

গবেষণায় দেখা যাচ্ছে, বেসরকারী সংস্থায় (Private Company) কর্মরত ব্যক্তিদের মধ্যে ৪৩ শতাংশ মানসিক সমস্যায় ভুগছে। গবেষণা বলছে, কাজের চাপ থেকে হচ্ছে মানসিক সমস্যা (Mental Problems)।

Over work pressure maybe cause of mental illness
Author
Kolkata, First Published Nov 28, 2021, 1:12 PM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

সারাদিন কাজের চাপ। বসের টার্গেট মিট করতে কমপিউটারে (Computer) মুখ গুঁজে কাটছে। আর সেলসে কাজ করলে তো কথাই নেই। সারাদিন ছুঁটে চলা। এই সব করতে গিয়ে নিজের জন্য ভাবার সময় নেই। এতে শরীরে বাড়ছে একের পর এক রোগ। স্ট্রেস (Stress), খারাপ খাদ্যাভ্যাস (Food Habits), জীবনযাত্রা (Lifestyle)-এই সবের জন্য ডায়াবেটিস (Diabetes), হার্টের রোগ (Heart Disease), ব্লাড প্রেসার (Blood Pressure)-সহ একাধিক রোগ দেখা দিচ্ছে। গবেষণা বলছে, এর থেকে হচ্ছে মানসিক সমস্যাও (Mental Problems)। 

এক গবেষণায় দেখা যাচ্ছে, বেসরকারী সংস্থায় (Private Company) কর্মরত ব্যক্তিদের মধ্যে ৪৩ শতাংশ মানসিক সমস্যায় ভুগছে। আর এই রোগ ভারতে বেশি মাত্রায় দেখা যাচ্ছে। প্রতিদিনই একাধিক মানুষ ডিপ্রেসনে আক্রান্ত হচ্ছেন। ওয়ার্ল্ড হেলথ অরগানাইজেইন (WHO)-এর রিপোর্ট অনুসারে বিশ্বব্যাপী ডিপ্রেশনের (Depression) কেসগুলোর মধ্যে ১৮ শতাংশ ভারতে দেখা গিয়েছে।  ফলে, এই রোগ মহামারীর মতো ছড়াচ্ছে ভারতে। জেনে নিন এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে কী করবেন। কাজের চাপ থাকবে তা স্বাভাবিক। এর থেকে যেন মানসিক সমস্যা দেখা না দেয়, তাই এই কয়টি জিনিস মেনে চলুন।   


•    খোলামেলা আলোচনা- অফিসে কাজের চাপ (Work Pressure) থাকবে তা স্বাভাবিক। কাজ নিয়ে বসের সঙ্গে সমস্যা হবেই। অফিসে সহকর্মীর সঙ্গেও মানিয়ে নিতে অনেকেরই সমস্যা হয়। এই সব সমস্যাকে হালকা ভাবে নিন। কেন কেউ আপনার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করল, কেন আপনি বসের কাছে কথা শুনলেন- এসব ভাবতে বসবেন না। অফিসের সমস্যা নিয়ে পরিবার ও বন্ধুর সঙ্গে আলোচনা  করুন। এতে মন হালকা হবে। কোনও খারাপ লাগা মনে চেপে রাখলে, পরে সমস্যা দেখা দিতে পারে।  

আরও পড়ুন: Health Tips: কাজের চাপ বাড়লেই দেখা দিচ্ছে মাইগ্রেনের ব্যথা, এই কয়টি জিনিস মেনে চললে উপকার পাবেন

আরও পড়ুন: Parenting Tips: বাচ্চার কান্নাকাটি, ঘ্যান ঘ্যানে ভাব ও হতাশা, ডিপ্রেশন থেকে হতে পারে বাচ্চার এমন আচরণ

•    মেডিটেশন- রোজ মেডিটেশন (Meditation) করুন। সারাদিন যতই ব্যস্ত থাকুন। নিজের জন্য নির্দিষ্ট সময় বের করুন। মেডিটেশন করুন রোজ। এতে মন শান্ত হবে, ধৈর্য্য বাড়বে, মনোসংযোগ বাড়বে। মানসিক রোগ সহজে আপনার শরীরে বাসা বাঁধতে পারবে না। এর যোগা বা ব্যায়ম করতে ভুলবেন না। মন যত হালকা থাকবে,তত সুস্ত থাকবেন। রোজ অন্তত ৩০ মিনিট হাঁটা শরীর ও মন সুস্থ রাখে। তাই মানসিক সু স্বাস্থ্য বজায় রাখতে শরীরচর্চা করুন। 

•    মেন্টাল হেলথ ট্রেনিং- নিতে পারেন মেন্টাল হেলথ ট্রেনিং (Mental Health Training)। অনেক অফিসে কর্মীদের মেন্টাল হেলথ ট্রেনিং দেওয়া হয়। এই ক্লাসে যোগ দিন। মানসিক সুস্বাস্থ্য বজায় রাখতে এই মেন্টাল হেলথ ট্রেনিং-এ বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। তাই চেষ্টা করুন মেন্টাল হেলথ ট্রেনিং নিতে। এতে যতই কাজের চাপ থাকুন, মানসিক রোগ থেকে দীূরে থাকবেন। 
 

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios