দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। করোনার কারণে মৃত্যুও হচ্ছে বহু মানুষের। অনেকই হারাচ্ছেন নিজেদের পরিবারের সদস্যদেরও। এইরকম পরিস্থিতিতে নিজেকে চিন্তামুক্ত রাখাই হয়ে উঠেছে দুর্বিষহ। তারপরে কোভিড সংক্রান্ত নানান সংবাদ চিন্তা যেন আরও বাড়িয়ে দিচ্ছে। এই করোনা পরিস্থিতিতে অনেকেই মানসিক অবসাদেও ভুগছেন। করোনা অতিমারির দ্বিতীয় ঢেউয়ে অনেক জায়গায় লকডাউন আবার বেশ কিছু জায়গায় আংশিক লকডাউনও চলছে যার জেরে কাজ নিয়েও চিন্তায় ভুগছেন অনেকেই। এই সব চিন্তা করতে করতে হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়ছেন অনেকেই। এই সব সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে মাথায় রাখতে হবে কিছু বিষয় যা আপনার চিন্তা কিছুটা হলেও কমাতে সাহায্য করবে।

এই পরিস্থিতিতে মানসিক চিন্তা কি ভাবে কমাবেন?

নেতিবাচক চিন্তা (Negativity) সবসময় মানুষকে মানসিক অবসাদের দিকে নিয়ে যায় এমনকি এর কারণেই Anxiety এবং Mental stress অনেকটাই বেড়ে যায়। তাই সবসময় ইতিবাচক চিন্তা করার চেষ্টা করুন। এতে শরীর-মন দুই ভালো থাকবে। এমনটাই জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

এই বিষয়গুলি মাথায় রাখুন, এতেই কমবে মানসিক অবসাদ- 

ক্ষমা করতে শিখুন এতে মানসিক অবসাদ অনেকটা কমে যায়। ক্ষোভ থেকে আমাদের চিন্তা অনেকটা বেড়ে যায়। রাগ এবং ক্ষোভ কমিয়ে নিজেদের জীবনে এগিয়ে যেতে পারলেই অনেকটাই ভালো থাকা যায়। এতে শরীর মন দুই ভালো থাকে। 

যদি কোনও কারণে আপনার মন খারাপ হয় বা আপনি চিন্তায় থাকেন তবে তা কাউকে জানান। নিজের খুব কাছের কাউকে খুলে বসুন সব কথা। আপনার সব সমস্যার কথা তাঁকে জানান। এতে অনেক সমস্যার সমাধানও হয় আর মনও ভালো থাকে।

আরও পড়ুন- কোভিডেও মিলল না মুক্তি, ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত হয়ে যুবতীর মৃত্যু কলকাতায়

আরও পড়ুন- করোনা সঙ্কটে থাকুন দুশ্চিন্তা মুক্ত, আপৎকালীন পরিস্থিতিতে কী করবেন জেনে নিন

অন্যকে দোষারোপ করা অভ্যাস খুব খারাপ একটা অভ্যাস। এই অভ্যাস ত্যাগ করলে দেখবেন অনেক ভালো আছেন। 

নিজের সঙ্গে কথা বলার অভ্যাস করুন। নিজের সঙ্গে কথা বললে অনেক সময়েই দেখা গিয়েছে অনেক সমস্যার সমাধান হয়ে যায়। নিজের সঙ্গে নিজেই কিছু ইতিবাচক কথা বলুন এতে ইতিবাচক চিন্তা অনেকটাই বাড়িয়ে দেয়। আপনার মস্তিষ্কের নিজস্ব কোনও মস্তিষ্ক নেই, তাই আপনি আপনার মস্তিষ্ককে যা বোঝাবেন সে তাই বুঝবে, এমনটাই জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

এই কথাটা হামেশাই শোনা যায় যে নিজেকে সময় দিন। নিজেকে সময় দেওয়া অত্যন্ত প্রয়োজন। নিজের কথা ভেবেই নিজেকে সময় দিন। নিজেকে কিছুটা সময় দিলে মন ভালো থাকবে। নিজের জন্য সময় বার করে গল্পর বই পড়তে পারেন, খবরের কাগজও পড়ে নিতে পারেন, যা আপনার ভালো লাগে তাই করুন। এতে দেখবেন নিজেকে অনেকটা হালকা লাগছে।