বিবাহ-বর্হিভূত সম্পর্ক নিয়ে অশান্তি লেগেই থাকত। স্ত্রীকে জীবন্ত পুড়িয়ে মেরে ফেলার চেষ্টা করল এক ব্যক্তি! প্রাণ বাঁচাতে শেষপর্যন্ত পুকুরে ঝাঁপ দেন ওই গৃহবধূ। হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন তিনি। স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ, শ্বশুর ও শাশুড়ি পলাতক। চাঞ্চল্যকর ঘটেছে হাওড়ার বাগনানে।

আরও পড়ুন: মনে বিষ ঢালাই ছিল কাজ, বাদু়ড়িয়ায় লস্করের 'লিঙ্কম্যান' ২১ বছরের যুবতী

আরও পড়ুন: বহরমপুরে তৃণমূল কর্মীকে গুলি করে খুন, আটক ১

বাগনানের গোহালবেড়িয়া গ্রামে থাকে শেখ মুলুকচাঁদ। পেশায় সে ভ্যানচালক। স্ত্রী ও বাবা-মাকে নিয়ে ভরা সংসার তার। কিন্তু হলে কী হবে!একাধিক মহিলার সঙ্গে মুলুকচাঁদের বিবাহ-বর্হিভূত সম্পর্ক ছিল বলে অভিযোগ। প্রতিবেশীদের বক্তব্য, অন্য মহিলাদের সঙ্গে স্বামীর মেলামেশা মেনে নিতে পারেননি মুলুকচাঁদের স্ত্রী রুবিয়া। এই নিয়ে রোজই অশান্তি হত। পরিস্থিতি চরমে পৌঁছায় রবিবার।  জানা গিয়েছে, সেদিন দুপুরে ফোনে কথা বলার পর বাড়ি থেকে বেরোচ্ছিল মুলুকচাঁদ। তখন তাঁকে বাধা দেন রুবিয়া। এরপরই শ্বশুরবাড়ির লোকেরা পিছন থেকে জাপটে ধরে শ্বশুর ও শাশুড়ি ওই গৃহবধূর গায়ে কেরোসিন ঢেলে দেয় বলে অভিযোগ। আর স্ত্রীর গায়ে 'আগুন' ধরিয়ে দেন মুলুকচাঁদ নিজে!  প্রাঁণ বাঁচতে কোনওমতে বাড়ি থেকে বেরিয়ে পুকুরে ঝাঁপ দেন রুবিয়া। পরে তাঁকে উদ্ধার করে স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্র নিয়ে যান প্রতিবেশীরা। শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ওই গৃহবধূর শরীরের পঞ্চাশ শতাংশই পুড়ে গিয়েছে।

এদিকে এই ঘটনার পর রুবিয়ার স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়ির বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন আক্রান্তের পরিবারের লোকেরা। অভিযুক্ত শেখ মুলুকচাঁদকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বাকিরা পলাতক।