এই পৃথিবীর বুকে কত কিছুই না ঘটে। তবে এই প্রতিবেদনে যে ঘটনার কথা বলা হচ্ছে তা চিকিৎসা বিজ্ঞানে যে একটা নজির বিহীন ঘটনা সেকথা বলাই যায়। বলা যায় কার্যত অসাধ্য সাধন করেছেন চিকিৎসকরা। ৫৬ বছর বয়সী এক মহিলার পাকস্থলীতে বেড়ে উঠেছিল সাত কেজি ওজনের একটি টিউমার। আর সেই টিউমারটি বের করে নিয়ে আসতে সফল হলেন চিকিৎসকরা। ঘটনাটি ঘটেছে তামিলনাড়ুর কোয়েম্বাটোরে। 

চিকিৎসক সেন্ডিল কুমার এবং তাঁর দল যৌথভাবে এই অসাধ্য সাধন করে উঠতে সমর্থ হয়েছেন। সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাতকারে তিনি জানিয়েছেন, দু বছর আগে, পেটের সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন ওই মহিলা। সেই সময়ে তাঁর শারীরিক সমস্যা এতটাই জটিল আকার ধারণ করে তাতে সেই মুহূর্তে তাঁর অপারেশন করতে বাধ্য হন চিকিৎসকরা। অপারেশন টেবিলে তার পেট কেটে হতবাক হয়ে যান চিকিৎসকরা। তাঁরা দেখতে পান যে তাঁর পাকস্থলীতে একটা বড় মাপের টিউমার রয়েছে। কিন্তু সেইসময়ে চিকিৎসকরা তার সেই টিউমারটি অপারেশন করতে চাননি, কারণ সেইসময়ে তাঁরা মনে করেছিলেন যে, তাঁর অপারেশন করা হলে তাঁর প্রাণসংশয় হতে পারে। 

 

যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘনের জের, সাদা পতাকা দেখিয়ে উদ্ধার করা হল নিহত দুই পাকিস্তানি সেনাকে

'হাউডি মোদী' অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, জানাল হোয়াইট হাউস

পাকিস্তানে সংখ্যালঘু হিন্দু স্কুল শিক্ষকের ওপর হামলা,মন্দির তছনছ করে প্রতিবাদ বিক্ষোভ সিন্ধ প্রদেশে

উড়ানের পরই ইঞ্জিনে আগুন, বড়সড় বিপত্তির হাত থেকে রক্ষা পেল পাক বিমানের ২০০ যাত্রী

কিন্তু অবশেষে সেই বিশাল আকারের টিউমারটি বের করতে সমর্থ হন তাঁরা। চিকিৎসক আরও জানিয়েছেন, টিউমারটি এতটাই বড় ছিল যে, তার সমস্ত পেট জুড়ে বেড়ে উঠেছিল। যার ফলস্বরূপ টিউমারটি তাঁর অন্ত্র, ইউটেরাস, ডান কিডনি এবং ডান দিকের মুত্রনালী পর্যন্ত বিস্তার লাভ করেছিল। আর সেই কারণেই টিউমারটি অপারেশন করার সিদ্ধান্ত নেয় চিকিৎসকরা। আরও জানা গিয়েছে যে, অপারেশনের আগে তাঁদের তরফে সমস্তরকম সতর্কতা অবলম্বন করা হয়েছিল। অবশেষে অপারেশনটি সফল হয়েছে।