কৃষকদের দেখান পথেই হাঠতে চলছে গেরুয়া শিবির। ১৬ দিন পরেও কৃষকরা যখন নিজেদের দাবিতে অনড় থেকে নতুন তিনটি কৃষি আইন বাতিলের দাবি জানিয়ে যাচ্ছে তখনই পাল্টা কৃষি আইনের প্রচারে উদ্যোগী হচ্ছে বিজেপি। কৃষি আইন কৃষকদের কাছে কতটা উপযোগী তা বোঝাতে এই প্রচারের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে বলে দলীয় সূত্রের খরব। আর সেই প্রচারের জন্য ১০০টিরও বেশি সাংবাদিক সম্মেলন করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে গেরুয়া শিবির। পাশাপাশি কৃষি বিলের সমর্থনে রাস্তায় নেমে প্রচারাভিযান চালাবে বিজেপি। তেমনই জানিয়েছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিজেপির এক নেতা। 

সূত্রের খবর আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই বিজেপির তরফ থেকে কৃষি বিলেন সমর্থনে প্রচার শুরু হবে।দেশের ৭০০টি জেলায় কৃষকদের সঙ্গে বৈঠকও করবেন দলীয় প্রতিনিধিরা। ৭০০টিরও বেশি বৈঠক করা হতে পারে কৃষকদের সঙ্গে বলে জানিয়েছে সূত্র। বিজেপি সূত্রের খবর মন্ত্রিপরিষদের সদস্যরাও এই প্রচার অভিযানে অংশ নেবেন। বিজেপি সূত্রে বলা হয়েছে কৃষি আইন নিয়ে সাধারণ মানুষের যে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে তা সমাধান করতেই এই উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। 

সাবধান, ৭০ লক্ষ ভারতীয় ব্যক্তিগত ও ব্য়াঙ্কের তথ্য ফাঁস হয়েছে ডার্ক ওয়েবে ...

খাবার ছুঁয়ে দেওয়ার 'শাস্তি' দিয়ে শ্রীঘরে দুই অভিযুক্ত, আবারও উঠল দলিত খুনের অভিযোগ ...


এদিনও কৃষি মন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর আন্দোলনরত কৃষকদের আলোচনার টেবিলে ডেকেছেন। পাশাপাশি তিনি বলেন কৃষকদের অসন্তোষ নিয়ে খোঁজ খবর নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। নূ্ন্যতম সহায়ক মূল্য নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার আস্বাশও দিয়েছেন বলে তিনি মন্তব্য করেন। তিনি বলেছেন আলোচনা আর পর্যালোচনা করেই সামাধানের পথ খুজতে হবে। তিনি আরও বলেন, বছরের পর বছর ধরে কৃষকদের ওপর চলা অন্যায় শেষ করতেই কৃষি আইনের পরিবর্তন করা হয়েছে। কৃষকরা যাতে ভালোভাবে বাঁচতে পারে সেইজন্যই আইনে বদল করা হয়েছে। নতুন আইনে কৃষকরা উপকৃত হবেন বলেও তিনি মন্তব্য করেন। তিনি আরও বলেন, যদি কৃষকদের কোনও সমস্যা থেকে থাকে তাহলে আলোচনা করেই তা সমাধান করতে হবে। 

তবে এখনও আন্দোলনের রাস্তা থেকে সরে না আসারই বার্তা দিয়েছে কৃষকরা। কারণও এদিনও সিংহু বর্ডারে আগামী দিনের কর্মসূচি স্থির করতে আলোচনায় বসেছেন কৃষক নেতৃত্ব। গতকালই কৃষকদের পক্ষ থেকে জানান হয়েছিল আদগী দিনে তাঁরা রেল রোকো কর্মীসূচি গ্রহণ করবে। গোটা ভরত জুড়ে এই কর্মসূচি পালন করা হবে বলেও জানান হয়েছে। পাশাপাশি রিলায়েন্সসহ বেশ কয়েকটি সংস্থার পণ্য বয়কট করার জন্য দেশের মানুষের কাছে ডাক দিয়েছেন তাঁরা।