প্রথমে প্রাক্তন ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর, এবার ফিল্ম তারকা 'ড্রিমগার্ল' হেমা মালিনী - ফের দিল্লির ভয়াবহ দূষণ নিয়ে চরম দায়িত্বজ্ঞানহীনের মতো মন্তব্য করলেন বিজেপির তারকা সাংসদ। দীপাবলির পর থেকে দিল্লির বাতাসের গুণমান সূচক 'বিপজ্জনক' ও 'অতি বিপজ্জনক' মাত্রার মধ্যে ঘোরাফেরা করছে। এর মধ্যেই এই অবস্থার মোকাবিলা করার পরিকল্পনা করতে সংসদের স্থায়ী কমিটি বৈঠক ডেকেছিল গত শুক্রবার। কিন্তু সেই বৈঠকে ২৯ জনের মধ্যে অনুপস্থিত ছিলেন ২৫ জনই। বাতিল হয়ে যায় সেই বৈঠক। এর কারণ হিসেবে ড্রিমগার্লের জবাব দিল্লির মতো দূষণ অন্যত্র না থাকায় বৈঠকে উপস্থিত হওয়ার তাগিদ ছিল না।

শুক্রবারের বাতিল হওয়া বৈঠকটি বুধবার ফের করা হয়। এদিনের বৈঠকে কিন্তু উপস্থিত ছিলেন সমালোচনার মুখে পড়া বিজেপি সাংসদ গৌতম গম্ভীর ও হেমা মালিনী, দুজনেই। বৈঠকে যোগ দেওয়ার মুখে আগের বৈঠকে অনুপস্থিতি নিয়ে প্রশ্নের জবাবে হেমা বলেন, দিল্লির মতো দূষণ মুম্বই বা অন্যত্র নেই। তাই অন্যান্য জায়গার সাংসদদের বৈঠকে তেমন ভূমিকা ছিল না। তবে দিল্লির সাংসদদের বৈঠকে অবশ্যই যোগ দেওয়া উচিত ছিল বলেই মত মথুরার বিজেপি সাংসদের।

৮ নভেম্বরের ওই বৈঠকে অনুপস্থিত ছিলেন সাংসদদ গৌতম গম্ভীর, হেমা মালিনী, কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়, দিল্লি ডেভলপমেন্ট অথরিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রমুখ। সোমবারই লোকসভার শীতকালীন অধিবেশন শুরু হয়েছে। প্রথমদিনই দিল্লির দূষণের ভয়াবহ পরিস্থিতির প্রসঙ্গ ওঠে। বৈঠকে অনুপস্থিত সাংসদদের নাম ধরে ধরে সতর্ক করেছিলেন স্পিকার ওম বিড়লা।

এর আগে ওই বৈঠকে যোগ না দিয়ে ইন্দোরে ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচে ধারাভাষ্য দিতে যাওয়ার জন্য প্রবল সমালোচিত হন গৌতম গম্ভীর। বিশেষ করে সেখানে সতীর্থ ভিভিএস লক্ষ্মণের সঙ্গে তাঁর জিলিপি খাওয়ার ছবি তীব্র বিতর্ক তৈরি করেছিল। আপ দলের পক্ষ থেকে বিষয়টি নিয়ে দিল্লিতে গম্ভীরের ছবি দিয়ে নিখোঁজ পোস্টারও দেওয়া হয়।