করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশই বাড়ছে দেশে। গত ২৪ ঘণ্টায় সব রেকর্ড ছাপিয়ে গেল আক্রান্তের সংখ্যা। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন, ১৯ হাজার ৯০৬ জন। যা এযাবৎকালে সব থেকে বেশি। দেশে সর্বমোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫লক্ষ ২৮ হাজার ৮৫০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৪১০ জনের। এখনও পর্যন্ত দেশে মৃতের সংখ্যা ১৬ হাজারেরও বেশি। 


তবে এরই সমধ্যে রয়েছে একটি ইতিবাচক দিক। এখনও পর্যন্ত দেশে সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্য়া ৩ লক্ষ ৯ হাজার ৭১৩ জন। যা কিছুটা ইতিবাচক বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। এই মুহূর্ত দেশে আক্রান্ত ও সুস্থ হয়ে যাওয়া মানুষের সংখ্যার পার্থক্য দাঁড়িয়ে রয়েছে ১লক্ষ ৬ হাজারে। বিশেষজ্ঞদের মতে করোনা আক্রান্ত ৫৮.৫৬ শতাংশ মানুষই সুস্থ হয়ে যাচ্ছেন। 

শনিবারই স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছিল, মহারাষ্ট্র, দিল্লি, গুজরাত তামিলনাড়ু, তেলাঙ্গনা, উত্তর প্রদেশ, অন্ধ্রপ্রদেশ ও পশ্চিমবঙ্গ-এই আটটি রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ৮৬ শতাংশ। মৃতের হার ৮৭ শতাংশ। 

লাদাখ ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর ওপর চাপ বাড়াচ্ছে কংগ্রেস, ঘুরে দাঁড়াতে অন্যপথে 'গান্ধী পরিবার' ...

'ভারতকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়তে'ই কি চিনের ১৬টি সেনা ছাউনি, গালওয়ানে ভারী হচ্ছে 'ড্রাগনের পায়ের ছাপ' ...
কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া রিপোর্ট আনুযায়ী দেশের আক্রান্তের ক্রম তালিকায় প্রথমে রয়েছে মহারাষ্ট্র। আক্রান্তের সংখ্যা ১লক্ষ ৫৯ হাজারেও বেশি। এই রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ৭ হাজারেও বেশি মানুষের। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে দিল্লি। আক্রান্তের সংখ্যা ৮০ হাজার। মৃতের সংখ্যা ২ হাজারের বেশি। তৃতীয় স্থানে তামিলনাড়ু, এই রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ৭৮ হাজারের বেশি। চতুর্থ স্থানে গুজরাত। আক্রান্তের ও মৃতের সংখ্যা হল ৩০ হাজার ও ১ হাজারের বেশি। ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ। আক্রান্তের সংখ্যা ১৬ হাজারের বেশি। এই রাজ্যে এখনও পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৬২৯ জনের।

ইউরোপের চার দেশের সঙ্গে উত্তর প্রদেশের তুলনা, মোদী কাছে অনেকটাই এগিয়ে যোগী রাজ্য ...