ভারতে সন্ধান পাওয়া করোনাভাইরাসের নতুন রূপ নিয়ে এখনও তেমন কোনও উদ্বেগজনক তথ্য সরবরাহ করেনি স্বাস্থ্য মন্ত্রক। কিন্তু চণ্ডীগড়ের পোস্ট গ্রাজুয়েট ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চের ডিরেক্টর দাবি করেছেন ভারত ও ব্রিটেনে করোনাভাইরাসের যে নতুন স্ট্রেনের সন্ধান পাওয়া গেছে তা অত্যান্ত দ্রুত সংক্রমণ যোগ্য। সংক্রমণ বৃদ্ধি রোধ করতে প্রয়োজনীয় বিষয়ে সতর্কতা অবলম্বন করা অন্যান্ত জরুরি বলেও জানিয়েছেন তিনি। বর্তমানে চণ্ডীগড়ে তাঁদের  হাসপাতালে নতুন স্ট্রেনে আক্রান্ত হওয়ায় ৫৫ জন করোনা রোগি ভর্তি রয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। গত ২ সপ্তাহে আক্রান্তের সংখ্যা ধীরে ধীরে বাড়ছে বলেও জানিয়েছেন হাসপাতালের প্রধান। 

করোনাভাইরাসের জিনগত পরিবর্তন ভারতে, নতুন রূপ কি উদ্বেগ বাড়াচ্ছে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের ...

কৃষি আইন প্রত্যাহার না করলে ৪০ লক্ষ ট্র্যাক্টরের সংসদ অভিযান, রাজস্থান থেকে ডাক কৃষক নেতার ...


মাত্র একদিন আগেই অর্থাৎ মঙ্গলবার করোনাভাইরাসের দুটি নতুন স্ট্রেনের সন্ধান পাওয়া গেছে বলেও জানিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রক। তবে এক শীর্ষ স্থানীয় চিকিৎসক বলেছেন E484K ও  N440K  রূপগুলি অত্যান্ত সংক্রাম্রক হতে পারে। তবে চণ্ডীগড়ের পোস্ট গ্রাজুয়েট ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চের ডিরেক্টর জানিয়েছেন ভারত ও ব্রিটেন দুটি দেশে করোনাভাইরাসের নতুন রূপের সন্ধান পাওয়া গেছে  দুটি দ্রুততার সঙ্গে ছড়িয়ে পড়তে পারে। প্রথম থেকেই সাবধান হওয়ার কথাও বলেছেন তিনি। 


বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক আরও জানিয়েছেন, গত ১০ দিনে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। তিনি আরও বলেছেন ভারতীয় স্ট্রেনগুলির দিকে লক্ষ্য রাখা হচ্ছে। ভারতীয় স্ট্রেনগুলির পাশাপাশি ব্রিটিশ স্ট্রেনগুলির যেকোনও একটি সংক্রমণ ছড়িয়ে দিতে পারে। প্রতিটি বিষয় খতিয়ে দেখা হচ্ছে। উপযুক্ত সময় সতর্ক না হলে দেশে করোনা সংক্রমণ আরও একবার বেড়ে যেতে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। কারণ ইতিমধ্যেই মহারাষ্ট্র ও কেরলে সন্ধান পাওয়া গেছে নতুন করোনা স্ট্রেনের। এই দুটি রাজ্যের বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা ধীরে ধীরে বাড়ছে বলেও জানিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রক। তবে স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে নতুন স্ট্রেনের কোনও যোগ রয়েছে কিনা তা এখনও স্পষ্ট নয়।