দিল্লির সম্ভ্রান্ত লোধি এস্টেট এলাকায় হাঠৎ করেই উত্তেজনা ছড়ালো শুক্রবার রাতে। সহকর্মীকে গুলি করে নিজেও আত্মঘাতী হলেন সিআরপিএফের এক সাব-ইন্সপেক্টর। রাত প্রায় সাড়ে দশটায় এই ঘটনাটি ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছয়। 

দিল্লি পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ৬১ নম্বর লোধি এস্টেটে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের নামে বরাদ্দ একটি বাংলোর কাছে শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টা নাগাদ এই ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে সেখানে যায় লোধি এস্টেট থানার পুলিশ। সেখানে দু’জনকেই মৃত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। গুলি দুটি চালানো হয়েছে একটি সার্ভিস রিভলভার থেকেই। পাশাপাশি দুটি দেহ পড়ে ছিল। দুই জওয়ানের দেহকেই ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। দু’জনের শরীরেই অবশ্য গুলির আঘাত পাওয়া গিয়েছে।

আরও পড়ুন: ফের দৈনিক আক্রান্ত ৪৯ হাজারের কাছাকাছি, বেসামাল পরিস্থিতি সামলাতে সোমবার মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে মোদী

জানা গিয়েছে, আত্মঘাতী জওয়ান আধা সামরিক বাহিনীর ১২২ নম্বর ব্যাটেলিয়ানের সাব ইন্সপেক্টর  ছিলেন করনিল সিং। তিনি জম্মু কাশ্মীর উধমপুরে বাসিন্দা। এদিকে খুন হওয়া সিনিয়র আধিকারিক দশরথ সিং-এর বাড়ি হরিয়াণার রোহতকে । সূত্রের খবর, দুজনের মধ্যে কিছুদিন ধরেই সমস্যা চলছিল। শুক্রবার রাতে দুজনের মধ্যে তর্কাতর্কি চলছিল। এমন পরিস্থিতিতে সিনিয়র আধিকারিককে লক্ষ্য করে গুলি চালান ওই এসআই । এরপরই নিজেও আত্মঘাতী হন। 

প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে করনিল সিং সাব-ইন্সপেক্টর পদে থাকলেও দশরথ সিং ইন্সপেক্টর পদে ছিলেন। দু’জনেই লোধি এস্টেট এলাকায় দায়িত্বে ছিলেন।  জানা গেছে সিনিয়র অফিসার যখন তাঁর নিজের ঘরে খাবার খাচ্ছিলেন এমন সময় সাব ইনস্পেক্টর তাঁকে গুলি করে। পরে তিনি বাংলোর প্রহরী কক্ষের সামনে প্রবেশদ্বার গেটের সমানে গিয়ে নিজের ওপরই গুলি চালান।  

আরও পড়ুন: লাগেজের মধ্যে ৬৬ লক্ষ টাকার সিগারেট, দুবাই থেকে ফিরেই বিমানবন্দরে গ্রেফতার ১৩ পরিযায়ী

কী নিয়ে দুই জওয়ানের মধ্যে ঝগড়া হয়েছিল তা জানা যায়নি। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ থেকে পুরো ঘটনা বোঝার চেষ্টা করা হচ্ছে। পাশাপাশি দুই জওয়ানের সহকর্মীদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তাঁদের বাড়িতেও খবর দেওয়া হয়েছে।  মৃত করনিল সিং-এর বয়স ৫৫ বছর ও দশরথ সিং ৫৬ বছর বয়সী ছিলেন বলে জানা গিয়েছে।