গত শুক্রবার দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৪৯,৩১০। যা এখনও পর্যন্ত দৈনিক সংক্রমণে এদেশে সর্বোচ্চ। শনিবার তার তুলনায় কিছুটা কমল সংখ্যাটা। তবে এদিনও দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা থাকল ৪৯ হাজারের কাছাকাছি। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে করোনা আক্রান্ত হয়েছে ৪৮,৯১৬ জন। ফলে দেশে করোনা আক্রান্তের মোট সংখ্যা পৌঁছে গিয়েছে ১৩ লক্ষ ৩৬ হাজার ৮৬১তে।

 

 

গত ২৪ ঘণ্টায় মারণ ভাইরাস করোনা প্রাণ কেড়েছে ৭৫৭ জনের। ফলে দেশে কোভিড ১৯ মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩১,৩৫৮। শুক্রবারই বিশ্বে মোট মৃতের সংখ্যায় ফ্রান্সকে পিছনে ফেলে ছয় নম্বর স্থানে উঠে এসেছে ভারত। বর্তমানে করোনায় মৃতের সংখ্যায় ভারতের আগে রয়েছে কেবল  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল, ব্রিটেন, মেক্সিকো এবং ইতালি।

আরও পড়ুন: স্বদেশি করোনা প্রতিষেধক কোভ্যাক্সিনের ট্রায়াল শুরু এইমসে, প্রথম টিকা দিল্লির যুবককে

তবে এরমধ্যে আশার কথা দেশে করোনাকে জয় করে সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যা হয়েছে ৮ লক্ষ ৪৯ বাজার ৪৩১। ফলে বর্তমানে ভারতে সক্রিয় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪ লক্ষ ৫৬ হাজার ৭১ জন। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান বলছে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৩২,২২৩ জন।  কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে দেশে গড় সুস্থতার হার ৬৩.৪৫ শতাংশ এবং ২.৩ শতাংশ মানুষ এই মারণ ভাইরাসের বলি হয়েছেন।

আরও পড়ুন: এই পাঁপড় খেলেই দূরে থাকবে করোনা, কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর আজব দাবিতে অস্বস্তিতে খোদ মোদী সরকার

আইসিএমআরের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে করোনার নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৪,২০,৮৯৮। আর গোটা দেশে এখনও পর্যন্ত কোভিড ১৯ নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১ কোটি ৫৮ লক্ষ ৪৯ হাজার ৬৮টি। 

এদিকে দেশে সুস্থতার হার বাড়লেও করোনার প্রবল প্রতাপ এখনও বর্তমান। বর্তমানে যা পরিস্থিতি, তাতে প্রতিদিনই আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা রেকর্ড গড়ে চলেছে। জানা যাচ্ছে এই অবস্থায় মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে ফের একবার বৈঠকে বসতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। দেশের করোনা পরিস্থিতিতে এখনো পর্যন্ত মোট ছয়বার মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী। ২৭ জুলাই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে এই বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। এদিকে দেশে আর কয়েকদিনের মধ্যে শেষ হতে চলেছে আনলক ২.০।