জুলাই মাসের শেষদিকে দেশে বাড়তে থাকা গণ হিংসার ঘটনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি দিয়েছিলেন মণি রত্নম, অনুরাগ কাশ্য়প, অপর্ণা সেন, সৌমিত্র চট্টোপাধ্য়ায়-সহ ৪৯ জন বুদ্ধিজীবী। দুর্গাপুজোর ঠিক মুখেই বৃহস্পতিবার বিহারের মুজফ্ফরপুরে তাঁদের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হল।

মুজফ্ফরপুরের এক স্থানীয় আইনজীবী সুধীর কুমার ওঝা এই ৪৯ জন বুদ্ধিজীবীর বিরুদ্ধে 'দেশের ভাবমূর্তি কলঙ্কিত করা, প্রধানমন্ত্রীর কাজকে খাটো করা এবং বিচ্ছিন্নতাবাদী প্রবণতাকে উস্কানি দেওয়া'র অভিযোগ করেছিলেন। সেই অভিয়োগের ভিত্তিতেই চিফ জুডিশিয়াল ম্যজিস্ট্রেট অপর্ণা সেনদের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করার নির্দেশ দেন।

আরও পড়ুন - অপর্ণা-সহ ৪৯ বিশিষ্টজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের! মোদীকে চিঠি দিয়েই আইনি জটে তাঁরা

আরও পড়ুন - অপর্ণা সেনরা একদেশদর্শী, সাংবাদিক সম্মেলনে তোপ দাগলেন তথাগত

আরও পড়ুন - ঘৃণা অপরাধ নিয়ে বুদ্ধিজীবী বনাম বুদ্ধিজীবী! অপর্ণাদের পাল্টা দিলেন কঙ্গনারা

সংবাদ সংস্থা পিটিআই সূত্রে জানা গিয়েছে এফআইআর-এ এই বুদ্ধিজীবীদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির বেশ কয়েকটি ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে। তার মধ্যে রাষ্ট্রদ্রোহ, প্রকাশ্যে উপদ্রব, ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত, শান্তি বিঘ্নিত করার প্রবণতার মতো অভিযোগ রয়েছে।

এর আগে প্রধানমন্ত্রীকে অপর্ণা সেন, মণি রত্নম, অপর্ণা সেন, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, শ্যাম বেনেগাল, শুভা মুদগল, পদ্ম বিভূষণ আদুর গোপালাকৃষ্ণণরা চিঠি লিখে ভারতে বাড়তে থাকা গণহত্যার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওযার জন্য অনুরোধ করেছিলেন। একই সঙ্গে তাঁরা দাবি করেছিলেন 'জয় শ্রীরাম' ক্রমে হত্যার হুঙ্কার হয়ে দাঁড়াচ্ছে। তারপরদিনই কঙ্গনা রানাওয়াতের মতো আরও ৬১ দজন বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব পাল্টা চিঠি দিয়ে অপর্ণাদের বিরুদ্ধে বেছে বেছে প্রতিবাদ করার অভিযোগ করেছিলেন।