আত্মনির্ভর ভারত গঠনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ। বর্তমান বিশ্বে গুণগত উন্নত মানের পণ্যের পাশাপাশি সাশ্রয়ী মূল্যের টেকসই পণ্য চাহিদা বেড়েছে। যা আত্মনির্ভর ভারত গঠনের মূল মন্ত্র। আর সেই কারণে এজাতীয় পণ্য তৈরি ও সরবরাহ করে বিশ্ববাসীর মন কেড়ে নিতে হবে আমাদের। একটি ওয়েবসাইটে নিজের কলামে তেমনই লিখেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। দেশীয় পণ্য যাতে বিশ্ববাসীর মনে জায়গা করে নিতে পারে সেই দিকেও গুরুত্বপূর্ণ নজর দিতে হবে। তিনি দেশবাসীর কাছে আবেদন জানিয়েছেন, 'জিরো এফেক্স জিরো ডিফেক্ট' জাতীয় পণ্যই তৈরি করার। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কয়েক দিন আগে তিনি মেট্রোলজি কনক্লেভে বক্তব্য রাখছিলেন। সেখানেও এই বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছিলেন। যদিও এই গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে বর্তমান খুব একটা বেশি চর্চা হয় না। কিন্তু বক্তৃতা চলাকালীন তিনি বিষয়টি উত্থাপন করেন কীভাবে মেট্রোলজি,পরিমাপের অধ্যায়ন আত্মনির্ভর ভারত গঠন করেতে ও দেশকে সমৃদ্ধ করতে সহযোগিতা করে। তাঁর নিজের লেখাতে তিনি ভারতকে দক্ষতা ও প্রতিভার একটি পাওয়ারহাউস বলেও বর্ণনা করেছেন। তিনি বলেছেন শিল্পে দেশের সাফল্য দেশের তরুণদের উদ্ভাবনী উদ্যোগই লক্ষ্য করা যায়। তিনি আরও বলেন, কেন্দ্রীয় সরকার যখন 'মেক ইন ইন্ডিয়া' পরিকল্পনা গ্রহণ করেছিল তখন বিশ্বব্য়াপী চাহিদা পুরণের লক্ষ্যের পাশাপাশি বিশ্বব্যাপী স্বীকৃতি পাওয়াও একটা লক্ষ্য ছিল। আর তাতে দেশ সফল হয়েছে। তিনি বলেন ভারত কেবল বিশ্বের চাহিদা পুরণ করেই থেমে থাকতে চায় না। 

মহামারি তাঁর দেশে পা রাখতে পারেনি, কিন্তু তারপরেও কেন করোনা টিকা জন্য হাত পাতছেন

'এক দেশ এক গ্যাস গ্রিড' লক্ষ্য আত্মনির্ভর ভারত গঠনে, গ্যাস পাইপলাইন উদ্বোধন করে বললেন মোদী

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, শিল্প নেতৃত্ব, ব্যবসায়ী প্রতিনিধি, স্টার্টআপ সেক্টরের তরুণ ও পেশাদারদের সঙ্গে একটি ঘনিষ্ট সম্পর্ক তৈরি হয়েছে বলেই লক্ষ্য করা যাচ্ছে। গোটা বিশ্বকেই ভারতের বাজারে পরিণত করতে হবে। আর সেই ক্ষমতা রয়েছে ভারতীয়দের। তিনি আরও বলেন ভারতীয়দের বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে এখনও পর্যন্ত প্রশ্ন তোলেনি কোনও দেশ। আমাদের জনগণের যোগ্যতা, জাতিগত বিশ্বাস, শীর্ষ মানের ভারচীয় পণ্যগুলি বহুদূর পর্যন্ত এগিয়ে যেতে সাহায্য করবে আমাদের। তিনি আরও বলেন, বিশ্বব্যাপী সমৃদ্ধির জন্য শক্তিগুণক আত্মনির্ভর ভারত-এর নৈতিকতার প্রতি একটা শ্রদ্ধাঞ্জলি হবে।