দিল্লির নির্ভয়া কাণ্ডের পর কাঠুয়া, উন্নাও, হায়দরাবাদ ফের উন্নাও - একের পর এক নৃশংস কাণ্ডের শিকার হয়েছেন এই দেশের মহিলারা। দীর্ঘদিন ধরেই দেশজুড়ে তাই মহিলাদের বিরুদ্ধে অপরাধের ক্ষেত্রে কঠোর আইন প্রণয়নের দাবি উঠেছে। কিন্তু তারপরও মহিলাদের বিরুদ্ধে অপরাধে লাগাম লাগার কোনও সম্ভাবনাই দেখা যাচ্ছে না। শুধু তাই নয়, ছেলের হাতে মায়ের ধর্ষণের মতো অভাবনীয় সব ঘটনা সামনে আসছে। সর্বশেষ এইরকম ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরাখণ্ড-এ। এক্ষেত্রে অভিযোগ এক নাবালিকাকে ধর্ষণ করেছে তার দাদু অর্থাৎ মায়ের বাবা।

আরও পড়ুন - ক্যামেরার সঙ্গে লুকোচুরি খেলে যৌনহেনস্থা, সরকারি স্কুলে লালসার শিকার ২৪ ছাত্রী

জানা গিয়েছে উত্তরাখণ্ডের আলমোরা তহসিলে ওই নাবালিকার বাড়ি। সে, অভিযুক্তের মেয়ের ছোটমেয়ে। গত কয়েকদিন ধরেই শিশুকন্যাটির শরীর খারাপ ছিল। বাড়ির লোক মনে করেছিলেন জন্ডিস বা অন্য কোনও রোগে ভুগছে সে। মঙ্গলবার নাবালিকাকে জন্ডিসের পরীক্ষার জন্য স্থানীয় এক হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। ডাক্তাররা পরীক্ষা করতে গিয়ে দেখেন ওই নাবালিকা গর্ভবতী হয়ে পড়েছে।  

আরও পড়ুন - বান্ধবীদের যৌনাঙ্গে আঘাত থেকে গণধর্ষণ, চ্যাটে শিউরে ওঠা আলোচনা স্কুলছাত্রদের

চিকিত্সকরা নাবালিকার পরিবারকে খবর দেওয়ার পরই তাঁদের পায়ের তলার মাটি সরে যায়। তাঁরা আকাশ থেকে পড়েন। প্রথমে তাঁরা ডাক্তারদের কথা বিশ্বাসই করতে চাননি। পরে বাড়ির লোকজন মেয়েটিকে নানাভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করতে যেতেই সে কান্নায় ভেঙে পড়ে। জানায় কিছুদিন আগে দিল্লিতে মামার বাড়ি গিয়েছিল যখন, তখনই দাদু তাকে ধর্ষণ করেছিল।

আরও পড়ুন - ছেলের হাতে ধর্ষিতা মা, তিনমাস ধরে অত্যাচার সয়ে ভাঙল সহ্যের বাঁধ

এই ভয়ঙ্কর ঘটনা জানার পর দেরি না করে এই নিকটাত্মীয়ের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ জানাতে যায় নাবালিকার বাবা-মা। কিন্তু, পুলিশ-কে তাঁরা মামলা সম্পর্কে সব তথ্য জানালেও পুলিশের পক্ষ থেকে এখনও কোনও এফআইআর অবধি দায়ের করা হয়নি বলে অভিযোগ করেছে নির্যাতিতার পরিবার। তদন্ত শুরু তো দূরের কথা।

আরও পড়ুন - কলকাতায় একসঙ্গে ধরা পড়ল ২৭ কেজি সোনা, বাজারমূল্য় ১০ কোটির বেশি