মেঘ ফাটা বৃষ্টি ও প্রবল বন্যায় বেহাল অবস্থা উত্তরাখণ্ডের উত্তরকাশি জেলার। বুধবার সেখানেই ত্রাণ সামগ্রি নিযে যেতে গিয়ে ভেঙে পড়ল একটি হেলিকপ্টার। কপ্টারে থাকা তিন ব্যক্তিরই মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে রাজ্যের বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। দেহগুলি উদ্ধারে দুর্ঘটনাস্থলে তাদের ১০ সদস্যের একটি দল গিয়েছে।

উত্তরকাশির মোরি থেকে মোলডি যাচ্ছিল হেলিকপ্টারটি। মাঝপথেই দুর্ঘটনার মুখে পড়ে। মৃত তিন ব্যক্তি হলেন, পাইলট রাজপাল, সহ-পাইলট কপ্তাল লাল এবং স্থানীয় বাসিন্দা রমেশ সাওয়ার। তবে ঠিক কী কারণে দুর্ঘটনার মুখে পড়ল কপ্টারটি, তা এখনও জানা যায়নি।

গত সপ্তাহেই বন্যা ও অন্যান্য বৃষ্টি সংক্রান্ত কারণে ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে উত্তরাখণ্ডে। একচটি মেঘ ফাটা বৃষ্টিতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। বহু মানুষ সেই থেকে নিখোঁজ ছিলেন। মঙ্গলবার (২০ অগাস্ট)-ই রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর উদ্ধারকারী দল সানেল গ্রাম থেকে আরও তিনজনের দেহ উদ্ধার করেছে। সবচেয়ে খারাপ অবস্থা মাকুদি গ্রামের। গত রবিবার, এই এলাকার ছয়টি গ্রামে অতি বৃষ্টিতে বেশ কয়েকটি বাড়ি পড়ে যায়।

আরও পড়ুন - উত্তরাখণ্ডে মেঘভাঙা বৃষ্টি, হিমাচলে প্রবল বর্ষণে মৃত ২০, দিল্লিতে বন্যা সতর্কতা

আরো পড়ুন - প্রবল বর্ষণের জের, ফুলে-ফেঁপে উঠেছে হরিদ্বারের গঙ্গা, জলমগ্ন একাধিক গ্রাম

আরো পড়ুন - হিমাচল প্রদেশে ধস নেমে অবরুদ্ধ রাস্তা, আটকে কয়েক হাজার পর্যটক

যে মোরি ব্লক থেকে এদিন হেলিকপ্টারটি রওনা হয়েছিল, সেখানে প্রায় ৭০ বর্গকিলোমিটার এলাকা ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছে। ১৭টি ঘরবাড়ি ভেঙে গিয়েছে। ভেঙে গিয়েছে চারটি ব্রিজ। গত কয়েকদিন ধরে বিস্তির্ণ এলাকায় কোনও বিদ্যুত সংযোগও নেই।