ভারতের মতো দেশে বিনা চিকিৎসায়ে প্রতি বছর বহু মানুষের মৃত্যু হয়। পর্যাপ্ত চিকিৎসা ব্যবস্থা না পেয়েই বহু মানুষ অকালেই প্রাণ হারান। অনেকেই দাবি করেন শহরের অ্যাপ ক্যাবের মতো অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবাও যদি অ্যাপের সাহায্য়েই পাওয়া যেত, তাহলে কতই না ভাল হত। তবে সেই সমস্যা খানিকটা হলেও সমাধান করতে পারে জীবনরেখা এক্সপ্রেস। 

মূলত, গ্রামীণ জনগোষ্ঠী যারা চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে যেতে পারেন না, তাঁরা যাতে চিকিৎসার সমস্ত সুযোগ-সুবিধা পান তাঁদের জন্য এক অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে ভারতীয় রেল। গ্রামীণ মানুষের দরজায়ে পৌঁছে দিতে চালু করা হয়েছে একটি আস্ত রেল। গ্রামীণ মানুষের দরজায়ে পৌঁছে দেওয়াই প্রধান লক্ষ্য এই রেল-এর। গোটা একটা রেলই একটা আস্ত হাসপাতাল। চিকিৎসা ব্যস্থার পাশাপাশি শল্য চিকিৎসা ব্যবস্থার ক্ষেত্রেও ব্যবহার করা হয় এই ট্রেন।  আর এটিই হল বিশ্বের প্রথম সাত কোচের হাসপাতাল ট্রেন। 

জানলে অবাক হবেন এই জীবনরেখা এক্সপ্রেসে রয়েছে দুটি অপারেশন থিয়েটার। এই অপারেশন থিয়েটারে রয়েছে অত্যাধুনিক মানের সরঞ্জাম। আধুনিক মানের যন্ত্রপাতি লাগানো মোট পাঁচটি অপারেটিং টেবিল রয়েছে। বিভিন্ন জায়গায়ে এই চলমান হাসপাতাল প্রায় ৮০০০ মানুষের চোখ, কান, নাক, দাঁত, মৃগীর মতো রোগের চিকিৎসার ব্য়বস্থা করে থাকে। 

আরও পড়ুন- ৩৭০ ধারা বাতিলের পর ২২২ বার যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করেছে পাকিস্তান, চলতি বছরে সংখ্যাটা ১৯০০

আরও পড়ুন -মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে আত্মঘাতী পুলিশকর্মী, মৃত্যু ঘিরে ঘনাচ্ছে রহস্য

আরও পড়ুন- এইচআইভি আক্রান্ত হওয়ার খবরে প্রাণ গেল এক মহিলার, তদন্তে উঠে এল রিপোর্ট ভুয়ো

আরও পড়ুন- দায়িত্বজ্ঞানহীনের মতো আচরণ না করে স্বাভাবিক প্রতিবেশী হন, পাকিস্তানকে তোপ কেন্দ্রের

বাইরে থেকে দেখলে আপাতভাবে এটি একটি আর পাঁচটা সাধারণ কামড়া বিশিষ্ট ট্রেন বলে মনে হলেও ভেতরে এটি একটি আস্ত হাসপাতাল। ভারতীয় রেল-এর উদ্যোগে এই ট্রেন কিন্তু ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলে চিকিৎসা প্রকল্পগুলি  পরিচালনা করার জন্য নিয়মিতভাবে মেডিকেল প্রজেক্ট-এর ব্যবস্থা করে থাকে, যাতে গ্রামের সাধারণ মানুষ এর সাহায্যে বিনা পয়সায় বিভিন্ন অসুখের বিষয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ , চিকিৎসা পরিষেবা এবং শল্য চিকিৎসার সুযোগ সুবিধা লাভ করতে পারে। 

বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা প্রায় বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা করে থাকে। পাশাপাশি ইমপ্যাক্ট ইন্ডিয়া ফাউন্ডেশনের তরফে এই চলমান ট্রেনের মধ্যে যোগ করা হয়েছে আরও একাধিক চিকিৎসা পরিষেবাও। মুখ, স্তন এবং জরায়ুর ক্যান্সারের পাশাপাশি উচ্চ রক্তচাপ এবং ব্লাড সুগার পরীক্ষার বিষয়টিও যোগ করা হয়েছে।