সোমবার থেকে শুরু হয়ে যাচ্ছে লকডাউনের চতুর্থ পর্ব। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কথায় এই লকডাউন হবে সম্পূর্ণ অন্য রূপে হবে এই লকডাউন। রাজ্যগুলির সঙ্গে কথা বলেই লকডাউনের গাইডলাইন স্থির করা হবে বলেই জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। সেইমত এদিন দিল্লিতে উচ্চ পর্যায়ের একটি বৈঠকও হয়েছে।  সূত্রে খবর এই নতুন এই লকডাউনে শিথিলতা থাকবে অনেকটাই বেশি। 

সূত্রের খবর লকডাউনের চতুর্থ পর্বে স্থানীয়ভাবে যান চলা শুরু হতে পারে। ছাড় দেওয়া হতে পারে মেট্রো পরিষেবাও। নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে ট্রেন চলাচলই শুরু করা যেতে পারে। তবে এখনও পুরো দমে ট্রেন বা বাস চালান হবে না। কিছুটা নিয়ন্ত্রণ টানা হবে। সূত্রের খবর পরিস্থিতি ও এলাকা বিবেচনা করে সরকার মল ও দোকানবাজার খোলার সিদ্ধান্ত নিতে পারে। সবুজ ও কমলা জোনের ক্ষেত্রে কিছু কিছু ছাড় থাকলেও লাল জোনে লকডাউনের কড়াকড়ি থাকবে অনেকটাই বেশি। আগামী ২ সপ্তাহের জন্য জারি করা হয়েছে চতুর্থ পর্বের লকডাউন।  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেওয়ার সময় বলেই দিয়েছিলেন করোনা  সংক্রমণ নিয়েই আমাদের দীর্ঘদিন চলতে হবে। তাই নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখেই আমাদের প্রতিটি পদক্ষেপ নিতে হবে। 

আরও পড়ুনঃ রাহুল গান্ধিকে 'নাটকবাজ' বললেন নির্মলা সীতারমন, সনিয়ার কাছে হাত জোড় করে আবেদন ...

আরও পড়ুনঃ 'দায়িত্বে থাকা মানুষ জানেই না তাঁরা কী করছেন', নাম না করে আবারও ট্রাম্পকে নিশানা ওবামার ...

আরও পড়ুনঃ করোনাভাইরাসও চিড় ধরাতে পারেনি হিন্দু-মুসলিমের বন্ধুতে, ভাইরাল দুই পরিযায়ী শ্রমিকের ছবি ...

অন্যদিকে মহারাষ্ট্র, পঞ্জাব তামিলনাড়ু সহ কয়েকটি রাজ্যে লকডাউনের সময়সীমা নিজেদের মত করে বাড়িয়ে নিয়েছে। মহারাষ্ট্র ও তামিলনাড়ু আগামী ৩১ মে পর্যন্ত লকডাউনের কথা ঘোষণা করেছে। এই দুই রাজ্যেই ক্রমশই বাড়ছে করোনা আক্রান্তের প্রকোপ।মহারাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ হাজারের বেশি। গোটা দেশে আক্রান্তের এক তৃতীয়াংশই মহারাষ্ট্রের বাসিন্দা।  হরিয়ানা, তেলাঙ্গনা, বিহারও লকডাউনের সময়সীমা বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে।