করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী রবিবার একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক করেন। বৈঠকে দেশের চলমান টিকা প্রদান কর্মসূচি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। একই সঙ্গে আলোচনা হয়েছে করোনাভাইরাসের দৈনিক সংক্রমণ বৃদ্ধি নিয়েও। হত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংথ্যা ৯৩ হাজারেরও বেশি। সেপ্টেম্বরের পর এই প্রথম দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৯০ হাজারে গন্ডি ছাড়াল।  দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ২৪ লক্ষ। 

গত বছর ১৯ সেপ্টেম্বর এই প্রথম আক্রান্তের সংখ্যা ৯০ হাজারের গণ্ডি পারকর। স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছে আটটি রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তে গড় ছিল ৮১. ৪২ শতাংশ। শীর্ষ থাকা রাজ্যগুলির মধ্যে রয়েছে মহারাষ্ট্র, কর্ণাটক, ছত্তিশড়. দিল্লি, তামিলনাড়ু, উত্তর প্রদেশ পঞ্জাব ও মধ্য প্রদেশ। সংক্রমণ রুখতে কেন্দ্রীয় সরকার ইতিমধ্য়েই রাজ্যগুলিকে মাস্ক ও স্যানিটাইজার ব্যবহারের নির্দেশ দিয়েছে। একই সঙ্গে নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব মেনে চরার ওপরে জোর দিয়েছে। করোনাভাইরাস সংক্রান্ত প্রোটেকলে শিছিলতার করাণেই আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে বলেও  মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।  বিশ্বের করোনা আক্রান্ত দেশদগুলির তালিকায় ভারতের স্থান তৃতীয় হলেও দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যায় প্রথম দুই স্তানে থাকা আমেরিকা ও ব্রাজিলকে রীতিমত টক্কর দিচ্ছে এই দেশ। 

বলিউডে পাড়ি দিয়ে করোনার কোপে টলিউড ডিভা, সুস্থতার পথে খবর শ

নন্দীগ্রামের বয়াল নিয়ে মমতার হাতে লেখা চিঠি, 'পয়েন্ট টু পয়েন্ট' জবাব নির্বাচন কমিশনের ...

অন্যদিকে করোনা আক্রান্ত রাজ্যগুলির তালিকায় শীর্ষে থাকা মাহারাষ্ট্রও পরিস্থিতি নিয়ে যথেষ্ট উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। রবিবার মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরেও করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্য মন্ত্রিসভায় বৈঠক ডেকেছেন।