আগামী ২০ মার্চ ফাঁসি হওয়ার কথা নির্ভয়াকাণ্ডের চার অপরাধী অক্ষয় ঠাকুর, মুকেশ সিংহ, বিনয় কুমার ও পবন গুপ্তার। ফাঁসির দিন এগিয়ে আসতেই দোষীদের পরিবারের সদস্যরা এক নতুন পন্থা নিল। এবার ৪ অপরাধীর পরিবার রাষ্ট্রপতির কাছে ইউথানসিয়া বা ইচ্ছামৃত্যুর আবেদন জানাল। সবমিলিয়ে মোট ১৩ জন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের কাছে এই আবেদন পেশ করেছেন। যার মধ্যে রয়েছেন মুকেশের পরিবারের ২ সদস্য, পবন ও বিনয়ের পরিবারের ৪ জন করে সদস্য এবং অক্ষয়ের পরিবারের ৩ জন সদস্য। 

আরও পড়ুন: সম্পর্ক রাখতে নিজের প্রেমিকের সঙ্গে বিয়ে দিয়েছিল মা, জানতে পেরে আত্মহত্যা মেয়ের

দিল্লির গত ৫ মার্চ দিল্লির পাতিয়ালা কোর্ট নতুন করে  আগামী ২০ মার্চ নির্ভয়ার দোষীদের জন্য ফাঁসির দিন ধার্য করেছে। সকাল সাড়ে পাঁচটা নাগাদ ৪ অপরাধীর ফাঁসি হওয়ার কথা। এর আগে নির্ভয়ার ধর্ষকদের জন্য তিনবার মৃত্যু পরোয়ানা জারি করেছিল আদালত। কিন্তু আইনি কারণে তিনবারই শেষপর্যন্ত ফাঁসি পিছিয়ে দিতে হয়। প্রতিবারই শেষমুহুর্ত পর্যন্ত দোষীরা আইনের ফাঁকফোকর খোঁজার চেষ্টা চালিয়েছে। কিন্তু রাষ্ট্রপতি পবনের প্রাণভিক্ষার আবেদন খারিজ করে দেওয়ার পর চার অপরাধীরাই বর্তমানে আইনের সাহায্য নেওয়ার পথ বন্ধ হয়ে গিয়েছে। তাই ফাঁসি পিছিয়ে দিতে সাজাপ্রাপ্ত আসামীদের পরিবার  চাপ সৃষ্টির এক নতুন পন্থা নিয়েছে বলেই মনে করছে  বিশেষজ্ঞ মহল। 

আরও পড়ুন: ভারতীয় সনাতনী পোশাক চলবে না, দিল্লির রেস্তোরাঁয় এন্ট্রি পেলেন না তরুণী, ভাইরাল হল ভিডিও

রবিবার রাষ্ট্রপতির কাছে চিঠি লিখেছে ৪ ধর্ষকের পরিবারের সদস্যরা। যাতে রাষ্ট্রপতির পাশাপাশি  নির্ভয়ার মা-বাবার কাছে অনুরোধ করা হয়েছে," ইউথেনশিয়ার অনুমতি দেওয়া হেক, যাতে নির্ভয়ার মত আর কোনও অপরাধ সংঘটিত না হয় ।" হিন্দিতে লেখা হয়েছে এই চিঠি। সাজা মকুবের আবেদন তারা করছেন না বলে জানান হয়েছে চিঠিতে। 

দোষীদের পরিবার আরও লিখেছে, "আমাদের দেশে মহাপাপিদেরও ক্ষমা করা হয়। প্রতিশোধ ক্ষমতার সংজ্ঞা নয়, ক্ষমা করার মধ্যেই রয়েছে আসল  ক্ষমতা। "

 

 

এর ফলে আগামী ২০ মার্চ ৪ অপরাধীর ফাঁসি ফের পিছিয়ে যায় কিনা সেটাই এখন দেখার। যদিও এই চিঠির কোনও অর্থ নেই বলেই মনে করছে আইনজ্ঞ মহল।