রাজস্থানের আজমের-এ কংগ্রেস কর্মী-সমর্থকদের একটি হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে ভাইরাল হল বেশ কয়েকটি পর্নোগ্রাফিক ভিডিও ক্লিপিংস। এই ঘটনায় এলাকায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। বহু বিশিষ্ট নেতা-নেত্রী বিশিষ্ট এই গ্রুপে কীভাবে কেউ পর্নোগ্রাফিক ভিডিও পোস্ট করলে তা কারোর বোধগম্য হচ্ছে না। মহিলা কংগ্রেস কর্মীদের একাংশ এই বিষয়ে খোলাখুলি তাঁদের ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এই ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি তুলেছেন তাঁরা।

আরও পড়ুন - হঠাৎ রাজপথ-এ প্রধানমন্ত্রী, 'হুনার হাট'-এ মজলেন 'লিট্টিচোখা'-'কুলহাড় চা'এ

জানা গিয়েছে জেলা ও রাজ্য পর্যায়ের বেশ কিছু বিশিষ্ট কংগ্রেস নেতৃবৃন্দসহ প্রায় ২৪০ জন কংগ্রেস নেতা-কর্মী ও সমর্থকরা কংগ্রেস কিং নামে এই হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের সদস্য। দিনতিনেক আগে এই গ্রুপের ২৯ টি অশ্লীল ভিডিও ক্লিপিংস পোস্ট করা হয়। আজমের জেলা কংগ্রেসের দুই মহিলা নেত্রী লক্ষ্মী নায়ক এবং মঞ্জু সোনি জানিয়েছেন, তাঁরা ভেবেছিলেন রাজস্থানে কংগ্রেস সরকারে কিছু পাইলট প্রকল্পের ছবি পাঠানো হয়েছে। সেই কারণেই ওই ভিডিওগুলি তাঁরা ডাউনলোড করেছিলেন। কিন্তু, ভিডিও খুলতেই বিব্রত হতে হয়। এই বিষয়ে তাঁরা পুলিশে অভিযোগ জানিয়েছেন।

আরও পডড়ুন - ফের ধর্ষণে অভিযুক্ত বিজেপি বিধায়ক, দেড় মাস আটকে রেখে ৭ জন মিলে চরম নির্যাতন

আরও পড়ুন - রামমন্দির ট্রাস্টের সভাপতি হলেন নিত্যগোপাল, প্রথম বৈঠকে নির্বাচিত সম্পাদক-কোষাধ্যক্ষ'ও

এই গ্রুপে বহু বিশিষ্ট কংগ্রেস নেতা রয়েছেন। অশ্লীল ভিডিও ক্লিপিং-এর বিষয়টি সামনে আসতেই তাঁদের মধ্যে অনেকেই এখন এই হোয়াটসঅ্য়াপ গ্রুপটি ত্যাগ করেছেন। এই গ্রুপের অ্যাডমিন তথা বিশিষ্ট কংগ্রেস নেতা সুরেশ সোনি বর্তমানে বিদেশে রয়েছেন। কিন্তু, মহিলা নেত্রী ও কর্মীরা সরে যাওয়ার পক্ষপাতি নন। তাঁরা অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তবে এই ঘটনায় এখনও অবধি পুলিশে কোনও অভিযোগ জানানো হয়নি বলে জানা গিয়েছে। এসপি কুনওয়ার রশ্তদীপ বলেছেন অভিযোগ পেলে নিয়ম অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।