বৃহস্পতিবার সরকারের তরফে বলা হয়েছে যে, রাষ্ট্রপুঞ্জের মানবাধিকার কাউন্সিলের (ইউএনএইচআরসি) কাছে জম্মু ও কাশ্মীরের বিষয়টিকে নিয়ে রাজনীতি এবং মেরুকরণ করার যে চেষ্টা পাকিস্তান করছে তাতে করেই আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের তরফে তার এই প্রচেষ্টাকে প্রত্যাখ্যান করা হয়। 

আর এই বিষয়টিকে নিয়ে পাকিস্তানকে এক হাত নিল ভারতের বিদেশ মন্ত্রক। এদিন বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার জানিয়েছেন, রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার কাউন্সিলের কাছে কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে পাকিস্তান যে রাজনৈতিক মেরুকরণের প্রচেষ্টা করছে, তা প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, বারংবার মিথ্যা কথা বললে তা সত্যি হয়ে যায় না। এদিন রবীশ কুমার আরও বলেন, রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে ভারতের প্রতিনিধিদল ভারতের অবস্থান তুলে ধরেছেন। পাকিস্তানের মিথ্যা ও বিকৃত মন্তব্যের যোগ্য জবাবও দেওয়া হয়েছে। সন্ত্রাসবাদী পরিকাঠামোর ওপর পাকিস্তানের যে কতখানি মদত রয়েছে সে সম্পর্কে গোটা বিশ্ব অবগত। 

'এ তো ট্রেলার ছিল, সিনেমা এখনও বাকি আছে', সরকারের ১০০ দিনে মোদী উবাচ

রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক সংযুক্তিকরণের প্রতিবাদের জের, পুজোর মুখেই ধর্মঘটের ডাক

উৎসবের মেজাজে বিষাদের সুর, গণেশ বিসর্জনে নৌকোডুবিতে মৃত ১১

এই দুই রাজ্যে দিয়ে চলবে দেশের প্রথম বুলেট ট্রেন, জানেন কি মাথাপিছু ভাড়া কত

এই প্রসঙ্গে বিদেশ মন্ত্রকের সচিব বিমর্ষ আরিয়ান জেনেভার অধিবেশনে বলেন, রাষ্ট্রসঙ্ঘের মাবনবাধিকার কাউন্সিলের মঞ্চে রাজনীতিকরণ ও মেরুকরণের লক্ষ্যে পাকিস্তান যেভাবে মিথ্যা উস্কানিমুলক বিবৃতি দিচ্ছে তা খুব একটা অবাক করা নয়। তাঁর দাবি, পাকিস্তান বুঝতে পেরেছে যে, আন্তঃসীমার সন্ত্রাসবাদ অব্য়াহত রাখার যে প্রচেষ্টা পাকিস্তান চালাচ্ছে সেই পথে ভারতেরর তরফে যে বাধার সৃষ্টি করা হয়েছিল, তাতে তাদের পায়ের নীচ থেকে মাটি সরিয়ে গিয়েছে।