ভারতীয় বিমান বিহানীর ইতিহাসে সোনার দিন হতে চলছে ২৯ জুলাই। রীতিমত শুরু হয়ে গেছে কাউন্টডাউন। কারণ এই দিনেই ভারতীয় বিমান বাহিনী হাতে পাচ্ছে পাঁচটি রাফাল যুদ্ধ বিমান। ভারতীয় বিমান বাহিনীর এটি হবে সব থেকে আধুনিক বিমান। প্রায় দুদশকের অপেক্ষার ফসল কুড়াতে চলেছে আইএএফ। অত্যান্ত আধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন এই যুদ্ধ বিমান ভারতকে শক্তিশালী করার পাশাপাশি পাকিস্তান ও চিনেক সঙ্গে মোকাবিলা করার শক্তি যোগাবে বলেও দাবি করেছেন অনেক সমর বিশেষজ্ঞ।  

প্রাক্তন এয়ার মার্শাল এম মেথেশ্বরন, বর্তমান পরিস্থিতিতে রাফালের প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেছেন লাদাখে ভারত ও চিনা সৈন্যদের সঙ্গে সংঘর্ষের পর বায়ু সেনার কাছে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন এই যুদ্ধ বিমানের গ্রহণ যোগ্যতা অনেক বেশি। তিনি আরও বলেছেন প্রয়োজনের তুলনায় পাঁচটি বিমান খুবই কম। কিন্তু তারও কিছুটা হলেও শক্তি যোগাবে ভারতীয় বিমান বাহিনীকে। 


তিনি আরও বলেছেন স্কোয়াড্রনটি ১৮টি বিমান ও তার সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত সরঞ্জাম ও অস্ত্র এবং তার সঙ্গে সমস্ত সরঞ্জাম ও অস্ত্রসজ্জায় সজ্জিত করতে সময় লাগবে। পাশাপাশি প্রশিক্ষণের জন্যও কিছুটা সময় লাগবে পাইলটদের। সব মিলিয়ে প্রায় এক বছর লেগে যায়বে। সেই মত দ্বিতীয় স্কোয়াড্রনটি তৈরি ২০২২ সালের মাঝামাঝি যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হয়ে যাবে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেছেন। তিনি আরও বলেছেন পাকিস্তান ও চিন উভয় প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে এটি গুরুত্বরপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। 

আকসাই চিনের দিক থেকে হামলা চালাতে পারে লালফৌজ, মোকাবিলায় ১২টি ভীষ্ম ট্যাঙ্ক কারাকোরাম পাসে ...

ভারতীয় বিমান বাহিনী আগে থেকেই স্থির করে রেখেছে আম্বালা ও পশ্চিমবঙ্গের হাসিমারায় রাখা হবে প্রথম দফায় প্রাপ্ত রাফাল যুদ্ধ বিমান। 

ভুয়ো খবর ছড়িয়ে দেওয়ার দাবি, চিনা ধনকুবের জ্যাক মা ও আলিবাবার বিরুদ্ধে ২০০ পাতার অভিযোগ ...

২৯ সেকেন্ডের হাতির ক্লিপ ভাইরাল নেট দুনিয়ায়, কী আছে যা মন কেড়েছে নেটিজেনদের ...