বিতর্কিত গালওয়ান উপত্যকা থেকে চিন সেনা সরিয়ে নেবে। সোমবারই এই তথ্য প্রকাশ্যে এসেছিল। এবার তার প্রমাণও হাতেনাতে পেয়ে গেল ভারত। সাম্প্রতিক উপগ্রহ চিত্রে দেখা গিয়েছে গালওয়ান উপত্যতা থেকে সত্যিই এবার পিছু হঠতে শুরু করেছে  চিনা সেনা।

আরও পড়ুন: চিনকে হাইভোল্টেজ ঝটকা, ৯০০ কোটির চুক্তি বাতিল করে দিল হিরো সাইকেল

সোমবরা থেকেই সেনা প্রত্যাহারের কাজ শুরু হয়েছে। প্যাট্রোলিং পয়েন্ট ১৫ বা হটস্প্রিং ও গোগরা থেকে চিনা সেনার সরে যাওয়ার কাজ বুধবারের মধ্যেই সমাপ্ত হবে। ইতিমধ্যে এই এলাকায় চিনা তাঁবুও গুটিয়ে ফেলা হয়েছে। ভাঙা হয়েছে কয়েকটি অস্থায়ী শিবিরও।

আরও পড়ুন: দেশি জেমস বন্ড অজিত ডোভাল, হলিউডি সিনেমার গল্পের থেকে কম নয় মোদীর এই মুশকিল আসানের জীবন

 মঙ্গলবার রাতের মধ্যেই গলওয়ানে ভারতীয় দিক খালি করে দেওয়া হয়েছে। পিপি ১৫, ১৭ ও ১৭এ থেকে বৃহস্পতিবারের মধ্যে পশ্চাদপসরণ করা হবে। দু’দেশের মধ্যে কথা হয়েছে, দু’পক্ষই ১ থেকে ১.৫ কিলোমিটার পর্যন্ত সরে যাবে। ভারত ও চিন দুই দেশ আপাতত তাই-ই  করছে। 

এদিকে ৬ জুলাই পাওয়া স্যাটেলাইট চিত্রে পরিষ্কার দেখা যাচ্ছে, গালওয়ানে গত ১৫ জুনের  সংঘর্ষস্থলের আশেপাশে আর চিনা সেনার উপস্থিতি নেই। সেনা ছাউনি, সাঁজোয়া গাড়ি সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তবে উপগ্রহ চিত্রের মাধ্যমে দেখা গিয়েছে,  পিপি ১৪ এলাকায় নতুন করে রাস্তা নির্মাণ করেছে চিনা সেনা। তবে ওই রাস্তাগুলি গালওয়ান নদীর জলস্তর বেড়ে যাওয়ায় এমনিতেই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল।

 

নতুন ছবিতে দেখা গিয়েছে, যে রাস্তা চিনা সেনারা তৈরি করেছে তা খালি পড়ে রয়েছে। নতুন করে কোনও নির্মাণ কাজও চোখে পড়েনি। ভারত চিন রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষস্থল থেকে প্রায় দেড়-দুই কিমি দূরে লালফৌজের ছাউনি তৈরি করা হয়েছে।