দেশের বিভিন্ন প্রান্তে একের পর এক ধর্ষণের ঘটনায় সরব হয়েছিলেন নয়া দিল্লি মহিলা কমিশনেপ প্রধান নয়া স্বাতী মালিওয়াল। ধর্ষকদের বিরুদ্ধে  দ্রুত কঠোর শাস্তির দাবি জানান তিনি। যার ফলে বিভিন্ন বাধার মুখে পড়েন দিল্লির মহিলা কমিশনের চেয়ার পার্সন। তার একটাই দাবি, ধর্ষকদের দ্রুত বিচার এবং মৃত্যুদন্ড। ২ ডিসেম্বর থেকে দিল্লির যন্তর মন্তরে আমরণ অনশনে বসেন তিনি। 

আরও পড়ুন-আমি ফাঁসি দিতে চাই নির্ভয়ার দোষীদের, অমিত শাহকে রক্ত দিয়ে চিঠি লিখলেন আন্তর্জাতিক শ্যুটার...

 

 

একটানা ১৩ দিন ধরে অনির্দিষ্টকালের জন্য অনশন করায় তার উপর নানারকমের হামলাও হয়েছে। কিন্তু কোনও কিছুর তোয়াক্কা না করে তিনি অনশন চালিয়ে গেছেন। আর এই একটানা অনশন চালানোর পরেই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে আজ সকালেই তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হঠাৎই তিনি অজ্ঞান হয়ে পড়েছিলেন  তারপরই তাকে দ্রুত নয়াদিল্লির লোক নায়ক (এলএনজেপি) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

 

আরও পড়ুন-'লোগো কো লড়বাও অউর অসলি মুদ্দে ছুপাও', মোদী-শাহকে পাল্টা সনিয়া- রাহুলের...

দেশে একটার পর একটা ধর্ষনের ঘটানা যেভাবে উঠে আসছে মূলত তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েই অনশনে বসেছিলেন তিনি। এর আগে ধর্ষণ মামলায় দোষীদের ৬ মাসের মৃত্যুদন্ডের দাবি করেছিলেন। এর আগেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি লিখেছেন তিনি।  শনিবার আবারও প্রধানমন্ত্রীকে সারাদেশে দিশা বিল বাস্তবায়নের  দাবিতে একটি চিঠি লিখেছিলেন। এই বিলে ২১ দিনের মধ্যে ধর্ষকদের মৃত্যুদন্ডের বিধান রয়েছে। স্বাতী প্রধানমন্ত্রীকে অনশনে বসার আগেও চিঠিতে জানিয়েছিলেন, 'প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার দাবি, ধর্ষণকারীদের শাস্তির জন্য আমি নিজে অনশনে বসছি। ধর্ষণকারীদের মৃত্যুদন্ড দেওয়া হোক। এদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হোক'। কিন্তু এই তথ্য দিয়ে একের পর এক চিঠি লিখলেও এর একটির জবাব মেলেনি।