৭ বছরের একটি মেয়েকে নৃশংসভাবে খুন করার অভিযোগ উঠল প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে। আর সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করে রীতিমত চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে তামিলনাড়ুর থুথুকুড়িতে। স্থানীয় প্রশাসনের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, মেয়েটির বাড়িতে ইলেকট্রিসিটি ছিল না। প্রতিবেশীর বাড়িতে গিয়েছিল টিভি দেখার জন্য ।  তাকেই ক্ষেপে গিয়ে ছোট্ট মেয়েটিকে নৃশংসভাবে খুন  করা হয়ে বলে অভিযোগ।  

পুলিশ জানিয়েছে মেয়েটি প্রতিবেশীকে শুধুমাত্র টিভি চালাতে বলেছিল। আর তাতে নাকি মেজাজ হারিয়েছিল প্রতিবেশী। শ্বাসরোধ করে খুন করে একটি প্ল্যাস্টিকের ড্রামে রেখে দিয়েছিল। দীর্ঘক্ষণ পরে নিথর দেহটি তাদের বাড়ি থেকে দুকিলোমিটার দূরে একটি খালে ফেলে আসেছ। আর এই কাজে প্রতিবেশীকে সাহায্য করেছিল তারই এক পরিচিত।  দীর্ঘক্ষণ নাবালিবা বাড়ি না ফেরায় খোঁজ শুরু করেন আত্মীয়রা। প্রতিবেশীর বাড়িতেও গিয়েছিলেন। স্থানীদের কথায় সেই প্রতিবেশী জানিয়ে ছিল মেয়েটি তার বাড়িতে আসেনি। অন্যদিকে এক পথচারি সেতুর নিচে পরিত্যক্ত ড্রাম দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। তারপর পুলিশ এসে মরদেহ উদ্ধার করে। 

'করোনাভাইরাসের হাত থেকে বাঁচাতে পারে একমাত্র ভগবান' স্বাস্থ্য মন্ত্রীর মন্তব্য ঘিরে বিতর্ক ...

রাজস্থান বিধানসভার লড়াই এবার হাইকোর্টে, শচীন পাইলটের আইনজীবী হরিশ সালভে ...

দলিত কৃষক দম্পতির ওপর পুলিশের নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল, ক্ষোভ প্রকাশ রাহুল, মায়াবাতীর ...

নিহত মেয়েটির পরিবার ও প্রতিবেশীদের দাবি মাদক খাইয়ে অজ্ঞান করা হয়েছিল তাকে। তারপর মেয়েটির ওপর যৌন নির্যাতন চালান হয়েছে।  অবশেষে মেয়েটিকে খুন করে প্রমাণ লোপাটের জন্য ফেলে দেওয়া হয় দেহ। যদিও এই বিষয় নিয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও মন্তব্য করেনি স্থানীয় তদন্তকারী আধিকারিক। পুরো ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষ করেই দাবি করা হয়েছে। তবে এখনও পর্যন্ত খুনের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে দুই অভিযুক্তের বিরুদ্ধেই পোকসো আইনে মামলা দায়ের হয়েছে। পাশাপাশি দায়ের করা হয়েছে খুনের অভিযোগও।