শ্বশুরের গড় ধরে রেখে বাজিমাত করল পুত্রবধূ, রেকর্ড ভোট জয় অখিলেশ ঘরনী ডিম্পলের

| Dec 08 2022, 07:37 PM IST

dimple yadav

সংক্ষিপ্ত

উত্তর প্রদেশের তিন বিজয়ী প্রার্থীকে শুভেচ্ছে জানিয়েছেন যোগী আদিত্যনাথ। শ্বশুরের কেন্দ্রে বাজিমাত করলেন পুত্রবধূ ডিম্পল যাদব।

 

উত্তর প্রদেশের তিনটি আসনের উপনির্বাচনে তিনটি রাজনৈতিক দল জয়ী হয়েছে। শ্বশুরের শক্তঘাঁটিতে রেকর্ডে ভোটে জিতেছেন পুত্রবধূ ডিম্পল যাদব। তিনি সমাজবাদী পার্টির প্রার্থী ছিলেন। অন্যদিকে এই প্রথম সমাজবাদী পার্টির নেতা আজম খানের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত রামপুর সদর বিধানসভা কেন্দ্রের পদ্ম ফুটল। আর খাতৌলি কেন্দ্রে জয়ী হয়েছে সমাজবাদী পার্টির মিত্রশক্ত রাষ্ট্রীয় লোকদল। উপনির্বাচনে তিন জয়ী প্রার্থীকেই শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ।

আদিত্যনাথ হিন্দিটে টুইট করে বলেছেন, উত্তর প্রদেশের ময়নপুরী, রামপুর ও খাতৌলি উপনির্বাচনে বিজয়ী প্রার্থীদের তিনি আন্তরিক শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন। বিজেপি যে প্রথমবারের মত রামপুর আসন দখল করেছে তাও আদিত্যনাথের টুইটে উল্লেখ রয়েছে। দলের সাফল্যের তিনি দলীয় নেতা কর্মী ও স্থানীয় জনতাকেও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

Subscribe to get breaking news alerts

দীর্ঘ দিন ধরেই সমাজবাদী পার্টির গড়হিসেবে পরিচিত মইনপুরী। এই কেন্দ্র থেকে দীর্ঘ দিন ধরেই জিততেন সমাজবাদী পার্টির প্রতিষ্ঠাতা মুলায়ম সিং যাদব। গত ১০ অক্টোবর তাঁর মৃত্যুর পর আসনটি ফাঁকা হয়ে যায়। সেখানেই অখিলেশ যাদব প্রার্থী করেন স্ত্রী ডিম্পল যাদবকে। ২০১৯ সালের নির্বাচনে মুলাময় এই কেন্দ্র থেকে ৯৪ হাজার ভোটে জয়ী হয়েছিলেন। এবার সেই কেন্দ্র থেকেই রেকর্ড ভোটে জয়ী হয়েছেন পুত্রবধূ ডিম্পল, তিনি জিতেছেন ২ লক্ষ ৮৮ হাজার ৪৬১ ভোটে। ডিম্পল ঝড়ে রীতিমত ধরাসায়ী বিজেপি প্রার্থী শাক্য। তিনি নিজের বুথ দৌলপুর থেকে হেরেছেন ১৮৭ ভোটে। ডিম্পলের প্রাপ্ত মোট ভোট ৬ লক্ষেরেও বেশিও। সেখানে শাক্য পেয়েছেন ৩ লক্ষ ২৯ হাজারের বেশি ভোট।

২০২৪ সালের নির্বাচনে বিজেপি উত্তর প্রদেশের সবকটি আসন পাবে বলে এখন থেকেই দাবি করছে। তাতে রীতিমত ধাক্কা দিয়েছেন ডিম্পল। ডিম্পল নির্বাচন পর্বে একবারই মইনপুরীর বাইরে যাননি। শুধুমাত্র আজম খানের এলাকা রামপুরে একটি মাত্র সমাবেশ করেছিলেন। বিজেপিও মইনপুরী জিততে চেষ্টা করেছিলেন। আর সেই কারণে অখিলেশ যাবদের সঙ্গে ব্যক্তিগত সমস্যা থাকা রঘুরাজ শাক্যকে প্রার্থী করেছিল। শাক্য একটা সময় শিবপাল যাদবের ঘনিষ্ট হিসেবে পরিচিত ছিল। কিন্তু অখিলেশের সময়ে শিবপাল যাবদের বর্তমানে আর কোনও সমস্যা নেই। ডিম্পলের হয়ে প্রচারও করেছিলেন শিবপাল। তাতেই ডিম্পলের জয় সহজ হয়ে যায় বলেও মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

আরও পড়ুনঃ 

জামিনে মুক্ত তৃণমূলের সকেত গোখলে, মোরবি ব্রিজ-কাণ্ডে প্রধানমন্ত্রীকে জড়িয়ে টুইট করেছিলেন তিনি

হিমাচল প্রদেশের কংগ্রেসের জয় বড় সাফল্য দেখছে দলীয় নেতৃত্ব, প্রশ্ন- কে হচ্ছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী

গুজরাট নির্বাচন ২০২২- গুজরাটে বিজেপির জয় কাকতালীয় নয়, কাজ করেছে তিনটি মারাত্মক কৌশল