অ্যান্টার্কটিকায় সেনা ছাউনির তদারকি করতে গিয়ে ঘটল বিপত্তি। বরফের রাজ্যে নিখোঁজ হয়ে গেল চিলি-এর সেনাবাহিনীর একটি বিমান। বায়ুসেনার তরফে জানানো হয়েছে, সোমবার সন্ধে থেকে বিমানের পাইলটের সঙ্গে যোগাযোগ করা যাচ্ছে না।  হাই অ্যালার্ট জারি করে যুদ্ধকালীন তৎপরতায় চলছে উদ্ধারকাজ। বিমানবাহিনীর সদর দপ্তরে বসে উদ্ধার কাজে নজরদারি চালাচ্ছেন চিলির প্রেসিডেন্ট স্বয়ং।  নিখোঁজ বিমানটিতে ১৭ জন কর্মী ও তিনজন আমরিক নাগরিক-সহ ২১ যাত্রীও ছিলেন বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশনে দুটি শৌচালয়ই খারাপ, মহাকাশচারীদের ভরসা এখন ডায়াপার-এ

পৃথিবীর শেষবিন্দু অ্য়ান্টার্কটিকার সবচেয়ে কাছে যে দেশ, তার নাম চিলি।  দক্ষিণ চিলির পুন্টা অ্যারিনাস শহর থেকে বিশেষ বিমানে অ্যান্টার্কটিকায় যেতে হয়।  বায়ুসেনার তরফে জানানো হয়েছে, সোমবার বিকেল থেকে পৌনে পাঁচটা নাগাদ পুন্টা অ্যারিনাস থেকে ৩৭ জনকে নিয়ে অ্যান্টার্কটিকার উদ্দেশ্যে রওনা হয় সেনাবাহিনীর বিমান হারকিউলিস। ঘন্টা দুয়েক পর মাঝ আকাশে আচমকাই পাইলটের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় বায়ুসেনার আধিকারিকদের। চিলি-এক বায়ুসেনার এক আধিকারিকদের দাবি, বিমানের যখন যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়, তখন আবহাওয়া যথেষ্ট ভালোই ছিল। পাইলট আপদকালীন বার্তাও পাঠাননি। কিন্তু তাহলে বিমানটি গেল কোথায়? যুদ্ধকালীন তৎপতায় চলছে উদ্ধার কাজ। অ্য়ান্টার্কটিকায় লাগোয়া এলাকায় হাই অ্যালার্ট জারি করেছে চিলি-এর সেনাবাহিনী। 

আরও পড়ুন: মোবাইল পেতে হলে করাতে হবে ফেস স্ক্যান, বাধ্যতামূলক হল চিনে

জানা গিয়েছে, অ্যান্টার্কটিকায় চিলি-এর একটি সেনা ছাউনি আছে। সেই সেনা ছাউনির জ্বালানি সরবরাহ ব্যবস্থা ও যন্ত্রপাতি রক্ষণাবেক্ষণে কারণে বিমানটিকে পাঠানো হয়েছে।  পাইলটও যথেষ্ট অভিজ্ঞ। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে সোমবার রাতে বিমানটির ফিরে আসার কথা ছিল।