গত বছর ডিসেম্বর চিনের উহান শহরে প্রথম প্রাদুর্ভাব ঘটেছিল করোনা ভাইরাসের। পাঁচ মাস কাটিয়ে আজ তা বিশ্বের নানা প্রান্তে মহামারীর আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। গোটা বিশ্বে করোনা সংক্রমণের শিকার হয়েছেন ৪৮ লক্ষেরও বেশি মানুষ। মারণ ভাইরাস প্রাণ কেড়েছে ৩ লক্ষ ১৬ হাজারেরও বেশি। পরিস্থিতি সামলাতে হিমশিম  খাচ্ছে আমেরিকা, ইউরোপের প্রথম বিশ্বের দেশগুলি। সংক্রমণ আটকাতে এখন অধিকাংশ দেশেই লকডাউনের আশ্রয় নিয়েছে। ফলে প্রতিটি দেশেই দেখা দিয়েছে আর্থিক মন্দা। প্রতিদিনই কাজ হারাচ্ছেন হাজার হাজার মানুষ। এককথায় গোটা বিশ্বকে সমস্যায় ফেলে দিয়েছে এই করোনা ভাইরাস। কিন্তু কোথা থেকে কীভাবে ছড়ালো করোনাভাইরাস। তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছিল অনেকদিন ধরেই। এবার এই বিষয়ে তদন্ত করতে অস্ট্রেলিয়া ও ইউরোপিয় ইউনিয়নকে সমর্থন জানাল বিশ্বের ৬২টি দেশ। যার মধ্যে রয়েছে ভারতও। করোনা ভাইরাসের মূল উত্থান কেন্দ্রকে খুঁজে পেতে চিনের উপর চাপ বাড়িয়ে এই বিষয়ে নিরপেক্ষ তদন্তকে সমর্থন জানিয়েছে ভারত।

 

 

সোমবার  থেকে জেনেভায় শুরু হচ্ছে রাষ্ট্রসংঘের বিশ্ব স্বাস্থ্য সাধারণ সভা। সেখানেই এই দাবিতে সরব হবে দেশগুলি। ইউরোপিয় দেশগুলি এবং অস্ট্রেলিয়া আগেই এই দাবিতে সরব হয়েছে। বিশ্বে  অস্ট্রেলিয়াই প্রথম দেশ যে করোনা ভাইরাসের তদন্ত দাবি করেছে। গত এপ্রিলেই অস্ট্রেলিয়ার বিদেশমন্ত্রী মরিস পাইনে জানিয়েছেন, যেভাবেই হোক এই সংক্রমণ ছড়ানোর কারণ সন্ধান অত্যন্ত জরুরি এবং তাতে নিরপেক্ষ হয়ে তদন্ত করতে হবে।

গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমণের শিকার ৫ হাজারের বেশি, দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়াল ৯৬ হাজারের গণ্ডি

বাসস্ট্যান্ডে পড়ে রয়েছে করোনা রোগীর দেহ, মুখ বাঁচাতে তড়িঘড়ি তদন্তের নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর

করোনা ফের ঘটিয়ে দিল মিরাকল, কাঠমান্ডুতে বসেই এবার দেখা গেল এভারেস্টের চূড়া

পাশাপাশি করোনা মহামারী সম্পর্কে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ‘হু’-এর প্রতিক্রিয়া সম্পর্কেও স্বতন্ত্র তদন্তের আহ্বান জানানো হয়েছে। ৭৩-তম বিশ্ব স্বাস্থ্য সাধারণ সভার বৈঠকের জন্য আপতত এই বিষয়ে যে খসড়া প্রস্তাব তৈরি হয়েছে, তাতে করোনা ভাইরাসের সঙ্কটের বিষয়ে ‘নিরপেক্ষ, স্বাধীন ও বিস্তারিত’ তদন্তের আহ্বান জানানো হয়েছে। প্রস্তাবে জানানো হয়, “যথাযথভাবে উপযুক্ত সময়ে এনিয়ে তদন্ত শুরু করা দরকার এবং প্রয়োজনে সদস্য দেশগুলির সঙ্গে পরামর্শ করুক হু। এই ভাইরাসের জেরে আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্যে যে প্রভাব পড়েছে সেই অভিজ্ঞতা ও পর্যালোচনা খতিয়ে দেখতে হবে। এমনকি এই ভাইরাস রোধে কতটা নিরপেক্ষ, স্বতন্ত্র পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছিল সেই বিষয়ে তদন্ত শুরু প্রয়োজন”। 

তবে একথাও ঠিক যে এই তদন্তের বিষয়ে প্রস্তাব উঠলেও এখনও এবিষয়ে চিন বা উহানের নাম করে কোনও কিছু বলা হয়নি। যদিও মনে করা হয় যে চিনের উহান থেকেই এই করোনা ভাইরাস বিশ্বের নানা দেশে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে এবং মহামারীর রূপ নেয়। তদন্তের খসড়া প্রস্তাবে যেসব দেশ সমর্থন দিয়েছে তাদের মধ্যে ভারত ছাড়া অন্যান্য বড় দেশগুলির মধ্যে রয়েছে জাপান, ব্রিটেন, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ কোরিয়া, ব্রাজিল এবং কানাডা।

এদিকে আগে থেকেই করোনা সংক্রমণ নিয়ে চিনের বিরুদ্ধে তোপ দেগে চলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। চিনকে একাধিকবার হুমকিও দিয়েছেন ট্রাম্প। মার্কিন প্রেসিডেন্ট অভিযোগ, করোনা সংক্রমণের তথ্য গোপন করেছে শি জিংপিং-এর দেশ। তার জন্য চিনের সঙ্গে আমেরিকার সব সম্পর্কে ইতি টানার হুমকি দিয়েছেন তিনি। মার্কিন প্রেসিডেন্ট এই বিষয়ে  বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার 'হু'-এর দিকেও অভিযোগের আঙুল তুলেছেন। চিনকে আড়াল করার চেষ্টা করা হয়েছে বলে অভিযোগ তুলে  বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে আর্থিক সাহায্য প্রদানও বন্ধ করে দিয়েছে আমেরিকা।