ভ্যাক্সিন তৈরির গবেষণাকে আড়ি পাতছে রুশ হ্যাকাররা। আর এই কাজে হ্যাকারদের সহযোগিতা করছে রুশ গুপ্তচর সংস্থা। রাশিয়ার বিরুদ্ধে এমনই ভয়ঙ্কর অভিযোগ আনল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন ও কানাডা। এই দেশগুলির অভিযোগ যেসব গবেষণাগারে প্রতিষেধক তৈরি হচ্ছে সেখানেই হানা দিচ্ছে হ্যাকাররা। তিনটি সরকারের অভিযোগের তীর ক্রেমলিনের দিকে। তিনটি সরকারই জানিয়েছে, এপিটি ২৯ নামক একটি হ্যাকিং সংস্থা রাশিয়ার গোয়েন্দেদের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগেই আড়ি পাতার কাজ করেছে। যদিও এই অভিযোগ উড়েয়ে দিয়েছে রাশিয়া। 


গ্রেট ব্রিটেনের ন্যাশানাল সাইবার সিকিউরিটি সেন্টার (এমসিএসসি)এবং কানাডার কমিউনিকেশন সিকিউরিটি এসটাবলিশমেন্ট (সিএমই) বলেছেন এপিটি ২৯ একটি সাইবার গুপ্তচর সংস্থা। যা রাশিয়ান গোয়েন্দাদের সঙ্গেই হাত মিলিয়ে কাজ করে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র পাশে দাঁড়িয়েছে কানাডা ও ব্রিটেনের। 

অভিযোগকারী তিনটি দেশ এখনও স্পষ্ট করে বলেনি তাদের দেশ থেকে কোনও তথ্য চুরি হয়েছে কিনা। তবে হ্যাকাররা এখনও পর্যন্ত তাদের গবেষণায় কোনও বাধা তৈরি করেনি বলেই স্পষ্ট করে জানিয়ে দিয়েছে। হ্যাকারদের টার্গেট ছিল গবেষণাগারের কমজোরি কম্পিউটারগুল। যার মধ্যমে তারা গবেষণার নথি হাতিয়ে নিতে চেষ্টা করেছিল বলে অভিযোগ। তবে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিন জানিয়েছেন এইজাতীয় কোনও প্রচেষ্টা তিনি বা তাঁর সরকার করেননি। 

অভিযোগকারী দেশগুলি জানিয়েছে, হ্যাকার সংস্থাটি  শুধুমাত্র প্রতিষেধক তৈরির সঙ্গে জড়িত সংস্থাগুলিকেই টার্গেট করেছিল।  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দাবি এপিটি ২৯ মূলত  টার্গেট করে সরকারি, কূটনৈতিক, থিঙ্ক ট্যাঙ্ক, স্বাস্থ্য পরিষেবা কেন্দ্রগুলিকে। এপিটি ২৯ হ্যাকার সংস্থাটির অন্য নাম দ্যা ডিউক বা কোজি বিয়ার। 

২০১৮ সালে রাশিয়া ও ব্রিটেন গুপ্তচরদের নিয়ে স্নায়ুযুদ্ধে জড়িয়েছিল। ব্রিটেনে বসবাসকারী রাশিয়ান এজেন্ট সের্গেই স্ক্রিপালকে হত্যাকরার অভিযোগ উঠেছিল পুতিন সরকারের বিরুদ্ধে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনেও রাশিয়ার গুপ্তচররা আড়ি পেয়েছিল বলে অভিযোগ তুলেছিলেন স্বায়ম ডোনাল্ড ট্রাম্প। তাই নিয়ে দুই দেশের সম্পর্কেরও অবনতি হয়েছিল। 

রাজস্থান বিধানসভার লড়াই এবার হাইকোর্টে, শচীন পাইলট পক্ষের দায়ের করা মামলার শুনানি শুক্রবার ...

করোনা মহামারীর পর স্বস্তি ফিরছে ড্রাগন অর্থনীতিতে, কতদিন তা স্থায়ী হবে তা নিয়ে রয়েছে চিন্তার মেঘ ... R

রাশিয়া, আমেরিকা, ব্রিটেন সহ একাধিক দেশই করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক তৈরির চেষ্টা করেছে। রাশিয়া প্রতিষেধক আবিষ্কার করে ফেলেছে বলেও দাবি করা হয়েছে। অন্য়দিকে বৃহস্পতিবার অক্সোফোর্ড বিশ্ব বিদ্যালয়ের প্রতিষেধক নিয়ে ইতিবাচক ফলাফলের ইঙ্গিত দিয়েছে। তবে প্রতিষেধক আবিষ্কারের সঙ্গে জড়িতদের টার্গেট করার অভিযোগ তুলে রাশিয়ার তীব্র সমালোচনা করেছে বেশ কয়েকটি দেশ। 

দলিত কৃষক দম্পতির ওপর পুলিশের নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল, ক্ষোভ প্রকাশ রাহুল, মায়াবাতীর ...