কোথায় রয়েছেন আর কেমন আছেন উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্র প্রধান? করোনাভাইরাসের এই মারাত্মক সংকটের সময়েই এই দুটি প্রশ্নে উত্তাল বিশ্ব। কিন্তু এখনও ধরা দিতে নারাজ ৩৬ বছরের দোর্দণ্ড প্রতার রাষ্ট্রনেতা কিম জং উন। কিন্তু আমেরিকা থেকে শুরু করে ইউরোপের গোয়ান্দা সংস্থাগুলি এখনই হাল ছাড়ছে নারাজ। এবার উত্তর কোরিয়ার ওপর নজরদারী চালান প্রজেক্ট নর্থ ৩৮এর একটি স্যাটেলাইট ইমেজে ধরা পড়ল উনসানের কাছে একটি বিলাস বহুল নৌকার ঘোরাফেরা। সেই নৌকাটি  কিমের ব্যক্তিগত ব্যবরারে জন্যই সংরক্ষিত। কিন্তু সেখানে কি কিম রয়েছে। 

যাথারীতি কিমের এখনও পর্যন্ত কোনও হদিশ পাওয়া যায়নি। তবে  কিমের স্বাস্থ্য ও তাঁর গতিবিধি নিয়ে এখনও উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় মাধ্যম এখনও পর্যন্ত একটিও বাক্য খরচ করেনি।  তবে প্রথমে প্রকাশিত স্যাটেলাইট ইজেমে ধরা পড়েছিল কিমের ব্যক্তিগত ট্রেন রয়েছে উনসানে। এবার দেশের বর্ধিষ্ণু এলাকা বলে পরিচিত রিসর্ট শহরেই দেখা গেল কিমের নৌকা। এই এলাকায় কিমের পৈত্রিক বাড়ি। স্থানীয় একটি স্টেশনও কিম ও তাঁর পরিবারের ব্যক্তিগত ব্যবহারের জন্য সংরক্ষিত। সমুদ্র উপকূলের বিস্তীর্ণ অংশই কিম পরিবারে জন্য সংরক্ষিত। হর্স রাইডিং ট্র্যাক থেকে শুরু করে কী নেই। রয়েছে এয়ারস্ট্রিপ ও বাস্কেটবল কোর্ট। এখন প্রশ্ন হচ্ছে কিম কি সেখানেই আছেন। 

আরও পড়ুনঃ আরোগ্য সেতু 'নিরাপদ' বললে তবেই অফিসে ঢোকা যাবে, না হলে হোম কোয়েরেন্টাইন, নয়া নির্দেশিকা কেন্দ্রের ...

আরও পড়ুনঃ করোনা আক্রান্তদের জন্য কার্যকর 'রেমডেসিভির' বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিপোর্টের উল্টো দাবি গিলিডের ...

উত্তর কোরিয়া রাষ্ট্র সংবাদ মাধ্যম ও প্রশাসন সে বিষয় মুখে কুলুপ আঁটলেও দক্ষিণ কোরিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসনিক কর্তারা বলছেন সম্ভবত করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে উনসানেই রয়েছেন কিম। তবে কিম যে গুরুতর অসুস্থ তা নিয়ে কোনও সংশয় প্রকাশ করেনি এই দুই দেশ। সূত্রের খবর  এই এলাকাটি কিমের অত্যন্ত প্রিয়।  এখানে সময় কাটাতে পছন্দ করেন তিনি। অনেকেই বলেন এই এলাকায় কিমের জন্ম। এখানেই বড় হয়েছেন তিনি। কিম রাজপরিবারের কাছেও উনসান বিশেষ গুরুত্ব রাখে। কারণ জাপানের হাত থেকে উত্তর কোরিয়াকে মুক্ত করতে এই এলাকায় সোভিয়ের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন কিমের দাদু কিম ইল।