পিত্তথলির সমস্যা নিয়ে সৌদি আরবের রাজা সলমন বিন আব্দুলাজিজ ভর্তি হয়েছেন হাসপাতালে, জানিয়েছে সেদেশের রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম।  ৮৪ বছরের রাজ ২০১৫ সাল থেকেই দেশের শাসনভার নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন। বর্তমানে তাঁর চিকিৎসা চলছে রাজধানী রিয়াধের একটি হাসপাতালে। পরিস্থিতি মোটের ওপর স্থিতিশীল বলেই জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকরা। 

সৌদির বিদেশমন্ত্রী জানিয়েছেন, রাজার অসুস্থতার কারণে ইরাকের প্রধানমন্ত্রী তাঁর সৌদি সফর স্থগিত রেখেছেন। এই সফরে দুই দেশের মধ্যে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আলোচনা হত বলেও সূত্রের খবর। 

বিশ্বের বৃহত্ততম তেল রফতানিকারণে দেশের নেতৃত্ব দিয়েছেন সলমল অব্দুলাজিজ। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গেই তাঁর মিত্রতা ছিল। ইসলামের প্রবিত্র জায়গাগুলির দায়িত্ব নিজের হাতে তুলে নেওয়ার আগেই সলমন সৌদির যুবরাজের দায়িত্ব পালন করেছিলেন প্রায় আড়াই বছর। সেই সময় তিনি রিয়াধের গভর্নর হিসেবেও গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছিলেন। ৫০ বছর তিনি রিয়াধের দায়িত্ব সামলেছেন। 

প্রকৃতির তাণ্ডবে বিপর্যস্ত উত্তরাখণ্ডের পিথরাগড়, মেঘভাঙা বৃষ্টির ভয়ঙ্কর ছবিগুলি একবার দেখুন


সৌদির রাজা হিসেবে কিছুটা ছকভাঙা ছিল আব্দুলাজিজ। রাজ পরিবারের সদস্য ছাড়াও নিজের একটি পৃথক পরিচয় তৈরি করেছিলেন তিনি। নিজে যথেষ্ট বিদগ্ধ ছিলেন। দেশের অর্থনৈতিক রূপকারও বলা যেতে পারে তাঁকে। কারণ তাঁর আমলেই সৌদি  তেল নির্ভর অর্থনীতি থেকে বেরিয়ে এসে একটি পৃথক পরিচয় পাওয়ার চেষ্টা করেছিল। তবে তাঁর পুত্র ৩৪ বছরের ক্রাউন প্রিস মহম্মদ বিন সলমন দেশের তরুণ মুসলিমদের কাছেই প্রবল জনপ্রিয় ছিলেন তিনি। কারণ মুসলিম রক্ষণশীলতা বিধিনিষেধ শিথিল করার জন্য মহিলাদের কাছ থেকেই প্রশংসা কুড়িয়েছিলেন। বর্তমানে দেশের ক্ষমতা অনেকই তাঁরই হাতে রয়েছে। 

বর্যার মরশুম করোনাভাইরাস দ্রুত সংক্রমণে সহায়ক, তেমনই তথ্য উঠে এসেছে দেশীয় গবেষণায় ...
  
তবে সৌদি রাজারা ছক ভাঙতে চাইলেও ক্ষমতা একীকরণের অভিযোগ রয়ে গেছে। ২০১৮ সালে জামাল খাশোগি হত্যার অভিযোগে আন্তর্জাতির সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল। সিআইএ দাবি করেছিল রাজকুমারের আদেশেই খুন করা হয়েছিল সাংবাদিককে। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন তিনি। তবে বলেছিলেন দায়িত্ব প্রাপ্ত হিসেবে তিনিই ঘটনার দায় নিচ্ছেন। 
করোনাভাইরাস নিয়ে আরও ভয়ের কথা শোনাল আইএমএ, দেশে মহামারী গোষ্ঠী সংক্রমণের পর্যায়ে পৌঁছে গেছে ...