বর্তমান সময়ে শিশুরা ছোট থেকেই তাদের নানা মজার কীর্তি কলাপের মধ্যে দিয়ে নেট দুনিয়া মাতিয়ে রেখেছে। জন্ম থেকেই এরা এত স্মার্ট আর বুদ্ধিমান যে সকলকে তাক লাগিয়ে দেয়। সম্প্রতি এক সদ্যজাত শিশুর ছবি ভাইরাল হয়েছে নেট দুনিয়ায়। সেই নবজাতকের মুখে আবার বিরক্তির ছাপ। শিশুর এই বিশেষ অভিব্যাক্তি তাকে ভাইরাল করে দিয়েছে। 

আরও পড়ুন: পর্যটকদের জন্য দুসংবাদ, শনিবার থেকে বন্ধ হচ্ছে ডিজনি পার্ক

ব্রিজেলর রিও দি জেনেইরো শহরের এক হাসপাতালে গত ১৩ ফেব্রুয়ারি জন্ম নিয়েছে এই কন্যআ সন্তান। যদিও ২০ ফেব্রুয়ারি নাকি তার জন্মানোর কথা ছিল। তবে মায়ের শরীরের অবস্থা খুব একটা ভালো না থাকায় সিজার করে তাকে আগেই আনা হয়েছে পৃথিবীতে। তাই কি শিশুটির এত রাগ! জন্মেই চোখ রাঙ্গানি চিকিৎসককে। মজা করে প্রশ্ন করছেন নেটিজেনরা। 

আরও পড়ুন: যোগী রাজ্যে সরকারি হাসপাতালে ঠাঁই হল না প্রসূতির, খোলা রাস্তায় জন্ম হল শিশুর

মায়ের সঙ্গে নাড়ি কাটার আগে কান্নার চেষ্টা করানোর সময় শিশুটির এই প্রতিক্রিয়া দেখে অবাক হয়ে যান ওটিতে থাকা চিকিৎসকরাও। নিজের সন্তানের জন্মের অবিস্মরণীয় মুহুর্ত ক্যামেরাবন্দি করতে এক ফটোগ্রাফার রড্রিগো কুনস্টম্যানকে ভাড়া করেছিলেন নবজাতকের মা ডায়ান ডি জেসুস। সেই ফটোগ্রাফারই শিশুটির বিভিন্ন মুহুর্তের ছবি তুলে রাখেন। তাতেই ধরা পড়ে সদ্যজাত কন্যা সন্তানের এই রাগত অভিব্যক্তি। মেয়ের সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করেন সদ্যজাতর বাবা এবং সেই ফটোগ্রাফার। মুহুর্তের মধ্যে নবজাতকের অদ্ভূত সেই অঙ্গভঙ্গি ভাইরাল হয়ে যায় নেট দুনিয়ায়। এমনকি নেটিজেনরা তাকে বিশ্বের নবম আশ্চর্যের তকমাও দিয়ে দিয়েছেন এর মধ্যে। 

 

জানা যাচ্ছে জন্মের পর চিকিৎসকরা তাকে কান্নার জন্য জোর করায় সে মুখটা অমন অদ্ভূত করেছিল। তার অবস্থা ঠিক আঠে কিনা এবং ফুসফুস ঠিকমতো কাজ করছে কিনা তা পরীক্ষা করতেই চিকিৎসকরা নাড়ি কাটার আগে তাকে কাঁদানোর চেষ্টা করেছিল। কিন্তু পরে অবশ্য নাড়ি কাটার পর কাঁদতে শুরু করে নেট দুনিয়ায় ইতিমধ্যে  ঝড় তুলে দেওয়া সদ্যজাত।