বৈদেশিক রাষ্ট্রগুলির সঙ্গে সুসম্পর্ক গড়ে তুলতে বিদেশ সফরে গিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ফ্রান্সের পর শুক্রবার রাতে সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে এসে উপস্থিত হয়েছেন মোদী। শনিবার সেদেশের সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মান 'অর্ডার অব জায়েদ' ভূষিত হলেন প্রধামন্ত্রী মোদী। 

বিদেশ সফর বাতিল করবেন না, প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ জেটলির পরিবারের

প্রসঙ্গত উপসাগরীয় দেশগুলির সঙ্গে সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় করার লক্ষ্যে এগোচ্ছে ভারত। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যেভাবে দু'দেশের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক পোক্ত করার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন, তাঁর সেই অবদানকে স্বীকৃতি দিতেই এই বিশেষ সম্মান প্রদান করা হল তাঁকে। প্রসঙ্গত, এই বিশেষ সম্মান এর আগেও প্রদান করা হয়েছে বিশ্বের তাবড় তাবড় সব রাষ্ট্রনেতাদের। যাঁদের মধ্যে বিশেষ উল্লেখযোগ্য হলেন, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। চিনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং এবং রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। চলতি বছর এপ্রিল মাসেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে সেদেশের সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মান প্রদানের কথা ঘোষণা করেছিল সংযুক্ত আরব আমিরশাহী। 

 

এখনও কাটেনি সুষমা স্বরাজের মৃত্যু শোক, তাঁর প্রয়াণে কী প্রতিক্রিয়া দিয়েছিলেন জেটলি

প্রসঙ্গত সর্বোচ্চ এই সম্মানটি সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর প্রতিষ্ঠাতা শেখ জায়াদ বিন সুলতান আল নাহয়ান-এর নামে উৎসর্গ করা হয়েছে তাঁর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে। প্রথমবার প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর  ২০১৫ সালে প্রথমবার সংযুক্ত আরব আমিরশাহী সফরে যান মোদী। তারপর থেকে দুই দেশের মধ্যে একাধিক বাণিজ্যিক চুক্তি হয়েছে। শুধু তাই নয় দু'দেশের মধ্যে ধর্মীয়, সাংস্কৃতিক ও অর্থনৈতিক যোগসূত্রগুলির ভিত্তিতে উষ্ণ ও বহুপাক্ষিক সম্পর্ক রয়েছে।  ২০১৭ সালে প্রজাতন্ত্র দিবসের প্রধান অতিথি হয়ে এসেছিলেন আমিরশাহির ক্রাউন প্রিন্স।