বিশ্বে সবচেয়ে বেশি করোনা আক্রান্ত রয়েছেন আমেরিকায়। মৃতের সংখ্যাতিও প্রতিদিনই রেকর্ড গড়ছে আমেরিকা। আর দেশে এই মারণ ভাইরাসের বৃদ্ধি নিয়ে বারবার চিনকে দোষারোপ করে চলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট বললেন, ষড়য়ন্ত্র করে আমেরিকার উপর হামলাই চালান হয়েছে। ট্রাম্প  মনে করেন, করোনা কোনও রকম ফ্লু নয়৷ এটা ফ্লুয়ের মোড়কে এক মারণ তোপ, যার জেরে কিছুটা হলেও বিপর্যস্ত  দেশের অর্থনীতি৷ এই ধরণের খারাপ সময় আমেরিকায় শেষ দেখা গিয়েছিল ১৯১৭ সালে। 

আমেরিকায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়াল ৮ লক্ষ, গ্রিনকার্ড দেওয়া বন্ধ করলেন ট্রাম্প

করোনা থেকে রেহাই মিলল না পোষ্যেরও, মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত গৃহপালিত বিড়াল

করোনার এবার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া শুরু চিনে, ফরসা থেকে কালো হয়ে গেলেন ২ চিকিৎসক

সামনেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রিসেডন্ট নির্বাচন। ফের একবার সেই নির্বাচনে জিতে দ্বিতীয়বার আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হতে চান ডোনাল্ড ট্রাম্প। তাই করোনা আবহের মাঝেও নিজের প্রচার চালাতে ভুলছেন না মার্কিন প্রেসিডেন্ট। ট্রাম্প জানিয়েছেন, গত তিন বছরে দেশের অর্থনৈতিক উন্নতি ছিল চোখে পড়া মতো৷ বিশ্ব ইতিহাসে অন্যান্য দেশের থেকে আমেরিকার অর্থনীতি খুবই ভাল জায়গায় ছিল৷ কিন্তু লকডাউনের ফলে এক ধাক্কায় সব ওলট-পালট হয়েছে৷ কিন্তু আবার বাণিজ্যিকে ভাবে দেশ ঘুরে দাঁড়াবে, যার জন্য বড় ইন্ডাস্ট্রিগুলিকে সাহায্য করবে তার সরকার৷

তিনি আরও জানিয়েছেন যে দু’মাস আগেই দেশের উড়ান সংস্থা থেকে শুরু করে অন্যান্য বড় সংস্থাগুলি দারুণ ব্যবসা করছিল৷ তারপরই এই ধস৷ তবে দেশের অর্থনীতিকে ঘুরে দাঁড়াতে সব রকম সাহায্য করবে মার্কিন সরকার৷ এদিকে করোনা সংক্রমণের প্রভাবে দিশেহারা মার্কিন অর্থনীতিতে দেশের নাগরিকদের চাকরির সুরক্ষা দিতে নয়া অভিবাসন নীতির কথা আগেই ঘোষণা করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এবার আগামী ৬০ দিনের জন্য অভিবাসন বন্ধের জন্য প্রশাসনিক নির্দেশ জারি করলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।