শরীর থেকে খুলে উড়িয়ে দেওয়া হিজাব কি এবার নড়িয়ে দিল ইরান প্রশাসনের গদি? হিজাব আইন ‘ভেবে দেখছি’, বললেন অ্যাটর্নি জেনারেল

| Dec 06 2022, 01:40 PM IST

iran hijab law
শরীর থেকে খুলে উড়িয়ে দেওয়া হিজাব কি এবার নড়িয়ে দিল ইরান প্রশাসনের গদি? হিজাব আইন ‘ভেবে দেখছি’, বললেন অ্যাটর্নি জেনারেল
Share this Article
  • FB
  • TW
  • Linkdin
  • Email

সংক্ষিপ্ত

তাহলে কি দেশের প্রচণ্ড বিদ্রোহের রোষে পড়ে নত হতে চলেছে ইরান প্রশাসন? উত্তরের জন্য অপেক্ষায় রয়েছে সারা বিশ্ব। 

হিজাবের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে ইরান দেশ জুড়ে যে ঝড় উঠেছিল, তা ক্রমশ প্রশমনের দিকে না এগিয়ে ফেটে পড়েছে জ্বলন্ত আগ্নেয়গিরির মতো। ‘মোল্লাতন্ত্র নিপাত যাক’ স্লোগানে ফুটছে ইরানের রাজধানি তেহরানের রাস্তা। অন্যদিকে আবার ধর্মগুরুদের পাগড়ি কেড়ে নিয়ে ছুঁড়ে ফেলতেও দেখা যাচ্ছে বহু আন্দোলনকারীকে। পালটা, বিদ্রোহ রুখতে অমানবিক অত্যাচার চালাচ্ছে ইরানের সরকার। ইতিমধ্যেই তিনশোর বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে এবার পাওয়া গেল বরফ গলার ইঙ্গিত।

বহু দশকের পুরনো হিজাব আইনটির পর্যালোচনা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ইরানের অ্যাটর্নি জেনারেল। তবে ঠিক কীভাবে করা হবে, তা পরিষ্কার করে না বললেও শেষ পর্যন্ত বিপ্লবের সামনে পড়ে সরকার এবং প্রশাসন যে মাথা নত করতে পারে, এমন সম্ভাবনার টের পাচ্ছে ওয়াকিবহাল মহল।

Subscribe to get breaking news alerts

ইরানের অ্যাটর্নি জেনারেল জানিয়েছেন, ”পার্লামেন্টের সাংস্কৃতিক কমিশন এই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করে দেখছে বিচারবিভাগীয় দফতরের সঙ্গে। আইনটির পরিবর্তন আবশ্যক কিনা, তা পর্যালোচনা করে দেখা হচ্ছে।” ঠিক কীভাবে পরিবর্তন হবে, তা অবশ্য পরিষ্কার করে জানাননি তিনি। তবে জল্পনা শুরু হয়েছে, তাহলে কি বিপ্লবের মুখে পড়ে নত হবে ইরানের প্রশাসন। উত্তরের জন্য আপাতত অপেক্ষায় ইরানের নাগরিকরা।

উল্লেখ্য, ১৬ সেপ্টেম্বর তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যু হয় ইরানের নীতি পুলিশের মারে । তারপরই দেশজুড়ে ছড়িয়ে পরে প্রতিবাদ মিছিল। বিরোধিতায় ইরানের রাস্তা ভাসছে ইটালিতে তৈরি হওয়া ‘বেলা চাও’ গানটি। এই হিজাব বিরোধী আন্দোলনে পুরুষদের একাংশও শামিল । তাঁদের কণ্ঠেও ‘বেলা চাও’ শোনা যায়। হিজাব বিরোধী প্রতিবাদের ভিডিও নিয়ে এখন নেটদুনিয়ায় জোর চর্চা।

প্রশাসনের নৃশংসতায় গিয়েছে তিনশোরও বেশি মানুষের প্রাণ। যদিও সরকারি হিসেবে মৃতের সংখ্যা দু’শোর আশপাশে দেখা গেছে। পাশাপাশি ইরান সরকারের দাবি, এই বিক্ষোভ আসলে এক ষড়যন্ত্র। এতে আমেরিকার হাত রয়েছে বলে দাবি করেন ইরান প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি। এই আন্দোলনকে ‘কোমলা’ বলে ইরানের একটি বামপন্থী সংগঠন ইন্ধন দিচ্ছে বলেও দাবি করেছেন তিনি। শেষ পর্যন্ত বিদ্রোহের আগুনে ইরানের সরকার হিজাব আইন বদলায় কিনা, সেদিকেই এখন চোখ গোটা বিশ্বের।

আরও পড়ুন-
পৃথক কামতাপুর রাজ্যের দাবি নিয়ে ফের আন্দোলনে কামতাপুর স্টেট ডিমান্ড ফোরাম, উত্তরবঙ্গে ১২ ঘণ্টা ধরে রেল অবরোধ
ভূপতিনগরের বিস্ফোরণস্থলে বিজেপি, বম্ব স্কোয়াডের কর্তাদের সামনেই হুড়মুড় করে তাড়া করলেন তৃণমূল সমর্থকরা
সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘তুইতোকারি’ সম্বোধন, কুরুচিকর পোস্ট করায় সাসপেন্ড উচ্চপদস্থ পুলিশ অফিসার