করোনা ভাইরাসের আতঙ্কের কারণে প্রশ্নের চিহ্নের মধ্যে রয়েছে আইপিএলের ভবিষ্যৎ।  এবার গোদের উপর বিষ ফোঁরার মত ফের প্রকাশ্যে চলে আসল বিসিসিআইয়ের সঙ্গে আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলির দ্বৈরথ। কারণ এক লাফে আইপিএলের প্রতি ম্যাচে ভেন্যু স্টেজিং ফি ২০ লক্ষ টাকা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত  নিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। আর তাতেই বেজায় চটেছেন আইপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলির আধিকারিকরা। প্রয়োজনে একজোট হয়ে বোর্ডের সঙ্গে সংঘাতে যাওয়ার কথাও ভাবা হচ্ছে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলির তরফে। 

আরও পড়ুনঃকরোনা ভাইরাসের জের, অল ইংল্যান্ড থেকে নাম প্রত্যাহার সাত ভারতীয়র

বোর্ডের সঙ্গে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলির মত পার্থক্য নতুন নয়। কারণ এর আগে খরচ কমাতে এই মরসুমে আইপিএলের পুরষ্কার মূল্য অর্ধেক করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিসিসিআই। আগে  ৫০ কোটি টাকা পুরষ্কার হিসেবে প্রথম চারটি দলের মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হত। এবার তা কমিয়ে করা হয়েছে ২৫ কোটি টাকা। অর্থাৎ টুর্নামেন্টের উইনার ও রানার্স ছাড়াও তৃতীয় ও চতুর্থ স্থাাধিকারী দলের মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হবে ২৫ কোটি টাকা।  প্রথমে সম্মতি না জানালেও, পরে ভারতীয় ক্রিকেটের গভর্নিং বডির এই সিদ্ধান্ত মেনে নেন ফ্র্যাঞ্চাইজির কর্মকর্তারা। কিন্তু ভেন্যু ফি একবারে প্রতি ম্যাচে ২০ লক্ষ টাকা বাড়ানোর সিদ্ধান্তকে মেনে নিতে পারছে না ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলি। 

আরও পড়ুনঃফের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে চলেছেন এবিডি, ইঙ্গিত মার্ক বাউচারের

আরও পড়ুনঃসুখকর হল না রুনি-ম্যান ইউ রিইউনিয়ন, এফ এ কাপের শেষ আটে রেড ডেভিলসরা

কোনও আলোচনা না করেই এতবড় সিদ্ধান্ত নিয়ে নেওয়াটা মোটেই ভালভাবে নিচ্ছে না দলগুলি। এইভাবে বিসিসিআই নিজেরাই নিজেদের ভাবমূর্তি নষ্ট করছে বলে মত এক ফ্র্যাঞ্চাইজি আধকারিকের। বিসিসিআইয়ের নিয়মঅনুযায়ী শেষ চার ম্যাচ ও ফাইনাল বাদ দিলেও, মরসুমের ৭টি ম্যাচে ২০ লক্ষ টাকা করে বাড়লে দলগুলির খরচ বাড়তে চলেছে মোট ১ কোটি ৪০ লক্ষ টাকা। যা নেহাত কম নয়। ফলে বিসিসিআই লাগাতার এই ধরনের সিদ্ধান্ত নিয়ে কি সংঘাতের পথে যেতে চাইছে? সেই প্রশ্নও তুলেছেন ফ্র্যাঞ্চাইজি কর্তারা। এই বিষয়ে সকলকে একজোট হওয়ার ডাক দিয়েছে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলি।  বিসিসিআইকে খোলা চিঠি লেখার চিন্তাভাবনাও রয়েছে তাদের। ২৯ তারিখ আইপিএলের প্রথম ম্যাচ। হাতে সময় খুবই কম। তার আগে কোন দিকে জল গড়ায় বিসিসিআই ও ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলির  দ্বৈরথের, সেদিকেই নজর সকলের।