দেখতে দেখতে একেবারে শেষ পর্বে চলে এসেছে ২০২০ মরসুমের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ। করোনা কালে সব বাধা বিপত্তি পেরিয়ে ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে আরব আমিরশাহিতে শুরু হয়েছিল এই আইপিএল। একের পর এক ম্যাচ পেরিয়ে , লিগ পর্ব শেষ করে এখন প্রতিযোগিতায় রয়ে গিয়েছে মাত্র তিনটি দল। তার মধ্যে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ইতিমধ্যে পৌছে গিয়েছে ফাইনালে। পঞ্চমবার ট্রফি জয়ের হাতছানি তাদের কাছে। অপরদিকে রবিবার প্লে অফের শেষ ম্যাচে মুখোমুখি হতে চলেছে দিল্লি ক্যাপিটালস ও সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। এই ম্যাচে যে জিতবে তারা ফাইনালে মুম্বইয়ের মুখোমুখি হবে।

১. মুম্বই ইন্ডিয়ান্স-
প্রথম ম্যাচে চেন্নাইয়ের কাছে হেরে প্রতিযোগিতা শুরু করলেও, তারপর দুরন্তভাবে ফর্মে ফেরে রোহিত শর্মার দল। একের পর এক ম্য়াচ জিতে লিগ টপার হিসেবে প্লে অফে পৌছয় মুম্বই। প্লে অফে দিল্লিকে হারিয়ে ফাইনালে পৌছয় রোহিত শর্মার দল। এখন ফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ কে হবে, সেই অপেক্ষায় চারবারের আইপিএল চ্যাম্পিয়নরা।

২. দিল্লি ক্যাপিটালস-
এবারের আইপিএল দুরন্ত ফর্মে শুরু করেছিল দিল্লি ক্যাপিটালস। লিগ পর্যায়ের খেলায় প্রথম পর্বে শীর্ষে থাকার অন্যতম দাবিদার ছিল দিল্লি। কিন্তু দ্বিতীয় পর্বে একের পর এক ম্যাচ হেরে চাপে পড়ে যায় শ্রেয়স আইয়রের দল। অবশেষে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় দল হিসেবে প্লে অফে পৌছয় দিল্লি। প্লে অফে মুম্বইয়ের কাছে হেরে রবিবার দ্বিতীয় সুযোগে সানরাইজার্সের মুখোমুখি হবে কোচ রিকি পন্টিংয়ের দল।

৩. সানরাইজার্স হায়দরাবাদ-
প্রতিযোগিতার শুরুতে নিজেদের চেনা ছন্দে ছিল না সানরাইজার্স হায়দরাবাদ দল। তবে শেষের দিকে ফর্মে ফেরে ডেভিড ওয়ার্নারের দল। গ্রপ পর্যায়ের শেষ তিন ম্যাচ জিতে কেকেআরকে পেছনে ফেলে প্লে অফে পৌছয় হায়দরাবাদ। প্লে অফেও আরসিবিকে হারিয়ে  রবিবার ফাইনালে ওঠার লড়াইতে দিল্লি ক্যাপিটালসের মুখোমুখি সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

৪. রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু-
২০২০-তেও আইপিএল জয়ের স্বপ্ন অধরাই থেকে গেল বিরাট কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের। প্রতিযোগিতার শুরুটা দুরন্ত করেছিল আরসিবি। কিন্তু শেষের দিকে একেবারেই নিজেদের সেরাটা দিতে পারেনি আরসিবির প্লেয়াররা। গ্রুপ ও প্লে অফ সহ টানা ম্যাচ হেরে প্রতিযোগিতা থেকে বিদায় নিয়েছে বিরাট কোহলির দল।

৫. কলকাতা নাইট রাইডার্স-
এবারের আইপিএল কলকাতা নাইট রাইডার্সের কাছে কাছে খুব একটা ভাল যায়নি। প্লে অফের ওঠার দাবিদার থাকলেও, শেষে নেট রান রেটের কারণে হায়দরবাদ কোয়ালিফাই করে প্লে অফে। কিন্তু ধারাবাহিকতার অভাবে এবার প্রথম থেকেই ভুগেছে কেকেআর। এছাড়া অধিনায়ক বদল, ওপেনি জুটি সমস্যা, ব্যাটিং-বোলিং কম্বিনেশেনরে সমস্যা একাধিক বিষয় ভুগিয়েছে নাইটদের। যেই কারণেই মরুদেশে আইপিএল জয়ের স্বপ্ন অধরা থেকে গেল ২ বারের আইপিএল চ্যাম্পিয়নদের।

৬. কিংস ইলেভেন পঞ্জাব-
আইপিএল ২০২০-র অন্যতম দাবিদার মনে করা হচ্ছিল কেএল রাহুলের কিংস ইলেভেন পঞ্জাব দলকে। কিন্তু প্রথম পর্বে পরপর ৬টি ম্যাচ হেরে চাপে পড়ে যায় পঞ্জাব। দ্বিতীয় পর্বে টানা ৫টি ম্যাচ জিতলেও, প্লে অফে ওঠার স্বপ্ন পূরণ হয়নি কিংস ইলেভেনের।বেশ কয়েকটি জেতা ম্যাচ হাত ছাড়া করার খেসারত দিতে হয় পঞ্জাবকে।

৭. চেন্নাই সুপার কিং-
এবারের আইপিএলে এমএস ধোনি ও চেন্নাই সুপার কিংসের খেলা দেখার জন্য মুখিয়ে ছিল ক্রিকেট বিশ্ব। কিন্তু এবার নিরাশ করে সিএসকে। লিগ পর্বে একের পর এক ম্যাচ হেরে গ্রপ টেবিলের শেষে ছিল ৩ বারের আইপিএল চ্যাম্পিয়নরা। কিন্তু শেষে টানা তিনটি ম্যাচ জিতে ১২ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের ৯ নম্বরে শেষ করে ধোনির দল।

৮. রজাস্থান রয়্যালস-
আইপিএলের প্রথম দুটি ম্যাচ শারজায় বিধ্বংসী ব্যাটিং করে ম্যাচ জিতেছিল রাজস্থান রয়্যালস। সকলেই ভেবেছিল এবার হয়তো চমক দেবে স্টিভ স্মিথের দল। কিন্তু পরের দিকে টানা ম্যাচ হেরে ১২ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের একেবারে শেষে ৮ নম্বরে শেষ করে রয়্যালসরা।

করোনা পরিস্থিতিতে এবারের আইপিএল সত্যিই চ্যালেঞ্জ ছিল বিসিসআইয়ের কাছে। তবে এখনও পর্যন্ত তা সফলভাবেই আয়োজন করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। খেলার বিচারেও এবারের আইপিএল সব থেকে কঠিন লড়াই হয়েছে বলা চলে। কারণ প্লে অফে তৃতীয় ও চতুর্থ  দল সানরাইজার্স ও আরসিবির পয়েন্ট ও প্লে অফে উঠতে না পারা কেকেআরের পয়েন্ট একই ছিল। অপরদিকে শেষ তিনটি দল পঞ্জাব, চেন্নাই ও রাজস্থানের পয়েন্টও সমান। এবার শুধু প্লে অফের শেষ ম্যাচ ও ফাইনালে আরও দুটি রুদ্ধশ্বাস ম্যাচ দেখার অপেক্ষায় ক্রিকেট প্রেমিরা।