শাজাহান আলি, মেদিনীপুর:  খিদের জ্বালায় বেপরোয়া হাতির দল! খাবারের সন্ধানে ফের সাতসকালে গ্রামে ঢুকল দলছুট দাঁতাল। ঘটনায় আতঙ্ক ছড়াল ঝাড়গ্রামে সাঁকরাইল ব্লকের বাকড়া গ্রামে। বনদপ্তরের ভূমিকা ক্ষুদ্ধ স্থানীয় বাসিন্দারা।

আরও পড়ুন: কোভিড আক্রান্ত চিকিৎসকের মৃত্যুতে প্রায় ১৯ লাখ বিল মেডিকার, রিভিউ-র নির্দেশ কমিশনের

ঝাড়গ্রামের জঙ্গলের এমনিতে হাতির অভাব নেই। তার উপর অন্য এলাকা থেকে বিশেষ করে দলমার হাতিরা ঢুকে পড়ে জঙ্গলে। কিন্তু জঙ্গলে যে খাবারের আকাল! এমনকী, ফসল নেই ক্ষেতেও। তাহলে খাবে কি? পেটের জ্বালা মেটাতেই ইদানিং জঙ্গল লাগোয়া গ্রামগুলিতে হাতির আনাগোনা বেড়েছে।

আরও পড়ুন: হাওড়ায় আক্রান্ত তৃণমূলের পঞ্চায়েত প্রধান, বাড়িতে 'হামলা' বিধায়কের অনুগামীদের

তখন সবেমাত্র সকাল হয়েছে। বৃহস্পতিবার সাঁকরাইল ব্লকের বাকড়া গ্রামে ঢুকে পড়ে একটি দলছুট হাটি। ঘুম থেকে উঠে গ্রামের রাস্তায় হাতি দেখে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন স্থানীয়েরা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, রাস্তায় বেশ কিছুক্ষণ ঘোরাঘুরি করার, হাতিটি চলে যায় বাজারের দিকে। বেশ কয়েকটি দোকান ও একটি ধানের গোলায় তাণ্ডব চালায় সে। হাতির দাপাদাপির জেরে বন্ধ হয়ে যায় যান চলাচলও। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছান বন দপ্তরের আধিকারিকরা। বেশ কিছুক্ষণের চেষ্টায় হাতিটি পাঠিয়ে দেওয়া হয় জঙ্গলে।

উল্লেখ্য়, দিন কয়েক আগে ঝাড়গ্রামের জামবনি এলাকায় লোকালয়ে ঢুকে সটান রেশন দোকানে হানা দিয়েছিল হাত। ভাঙচুর চালিয়েছিল বেশ কয়েকটি বাড়িতেও। স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা না করে এলাকায় ভিড় জমিয়েছিলেন বহু মানুষ