লোকালয়ে ঢুকে পড়েছে হাতি। কিন্তু ভরডর নেই কারও! উল্টে হাতিটিকে রীতিমতো উত্যক্ত করলেন গ্রামবাসীরা।  ঘটনাটি  ঘটেছে ঝাড়গ্রামের জামবনিতে। ভিডিও ভাইরাল হয়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে বনদপ্তর।

গত কয়েকদিন ধরেই তাণ্ডবে রীতিমতো আতঙ্ক ছড়িয়েছে ঝাড়গ্রামের জামবনিতে। হাতির হামলার প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। বুধবার সকালে ফের একটি হাতি ঢুকে পড়ে স্থানীয় টুলিবর গ্রামে। কিন্তু এবার আর এলাকায় কোনও ক্ষয়ক্ষতি হয়নি, বরং দুলকি চালে গ্রামের মেঠো পথে ধরে হাতিটি জঙ্গলের দিকেই যাওয়ার চেষ্টা করছিল বলে জানা গিয়েছে। আর এতেই গ্রামবাসীদের সাহস বেড়ে যায়।  কেউ সেলফি তুলে শুরু করেন, কেউ আবার ঢিল মারতে থাকেন। নানাভাবে গ্রামবাসীরা হাতিটিকে উত্যক্ত করেন বলে অভিযোগ। বস্তুত যে ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে, সেই ভিডিও-তে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে, পিছন থেকে হাতিটি লেজ ধরে টানাটানি করছেন এক ব্যক্তি! কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় হল, হাতিটি কিন্তু যাবতীয় অত্যাচার মুখ সহ্য করেছে, একবারও প্রত্যাঘাত করেনি।  শেষপর্যন্ত জঙ্গলে চলে যায় অবলা প্রাণীটি।

আরও পড়ুন: ফেলে রাখা ধান খেয়ে হাতির মস্তানি, দেখেও এগোনোর সাহস পেল না চাষীরা

এদিকে এই ঘটনায় নড়েচড়ে বসেছে বনদপ্তর। ঝাড়গ্রামে ডিএফও বাসবরাজ হলেইচ্চি বলেন, হাতি এমনিতে শান্ত প্রাণী। কিন্তু উত্ত্যক্ত করলে বিপদ হতে পারে। যাঁরা এই কাজ করেছেন, তাঁদের সন্ধান করা হচ্ছে। দোষীদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কিন্তু, মানুষের অত্যাচার কেন মুখ বুজে সহ্য করল হাতি? বন দপ্তরের আধিকারিকদের ব্যাখ্যা, আক্রান্ত হাতিটি ঝাড়খণ্ড থেকে এসেছিল এবং সেটি সম্ভবত পোষা হাতি। তাই এ যাত্রায় বেঁচে দিয়েছেন গ্রামবাসীরা।